৪ জনকে রিমান্ডের আসামী করে কোর্টে প্রেরণ

আ’লীগ নেতা চথোয়াই হত্যার ঘটনায় ১৩ জন আসামী

fec-image

বান্দরবান পৌর আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি চথোয়াই মং মারমাকে অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় ১৩জনকে আসামী করা হয়েছে।

রবিবার (২৬ মে) বান্দরবান সদর থানায় ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি করেছেন নিহত চথোয়াইর স্ত্রী মেচাচিং মারমা। মামলায় আরও ১৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

এছাড়াও এ ঘটনায় ৪ জনকে রিমান্ডের আসামী করে কোর্টে প্রেরণ করে, আগামী ১৫ তারিখ তাদের রিমান্ডে দিন ধার্য করা হয়েছে।

মামলার উল্লেখযোগ্য আসামীরা হলো- জেএসএস এর কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কেএসমং মারমা, জেলা সভাপতি উছোমং মারমা, সাধারণ সম্পাদক ক্যবামং মারমাসহ ১৩ জন।

এদিকে শনিবার (২৫ মে) রাতে আটক জেএসএস নেতা কেএসমং ও ক্যবামং মারমাকে আদালতে হাজির করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বান্দরবান সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহীদুল ইসলাম। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।

এই বিষয়ে বান্দরবান পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার জানান, যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে এবং অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আটক করার জন্য অভিযান চলমান রয়েছে। তাদেরকে আটক করার জন্য গোয়েন্দা বিভাগ তৎপর রয়েছে এবং মাঠে গোয়েন্দা বিভাগের লোকজন কাজ করছে তাদের ব্যাপারে সকল রকম তথ্য সংগ্রহ করার জন্য।

তিনি আরও জানান, গোয়েন্দা বিভাগের লোকজন ও প্রশাসনিক বিভাগ থেকে আশা করা যাচ্ছে খুব দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে এ ধরনের কর্মকাণ্ড যাতে ভবিষ্যতে করতে না পারে তার জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করবেন বান্দরবান জেলা পুলিশ।

হত্যাকাণ্ডের পর থেকে বান্দরবানের প্রতিটা অলিগলিতে প্রশাসনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে এবং দুস্কৃতিকারীরা ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটাতে পারে না সেজন্য পুলিশ প্রশাসন সদা তৎপর রয়েছে বলেও জানান তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ: চথোয়াই, বান্দরবান, মামলা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 2 =

আরও পড়ুন