কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধসে বৈদ্যুতিক খুঁটি ও গাছ পড়ে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

fec-image

ভোর থেকে ভারী বৃষ্টির প্রভাবে কাপ্তাইয়ের লকগেইট ও বালুচর এলাকায় শনিবার সকালে পাহাড় ধসে বৈদ্যুতিক খুঁটি ও গাছ উপড়ে  কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়কে যান চলাচল বিছিন্ন হয়ে পড়ে।

অন্যদিকে রাইখালীর কারিগরপড়ায় পাহাড় ধসে অতল বড়ুয়া (৫০) ও আচামং মারমা (৪২) ঘটনাস্থলে নিহত হয়। কারিগর পাড়া সহ ওই ইউনিয়নের সন্দিপ পাড়া ও বড়খোলা পাড়ায় পাহাড় ধসে চন্দ্রঘোনা-রাজস্থলী-বান্দরবান সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

এদিকে কাপ্তাই নৌ-স্কাউটস, ফায়ার সার্ভিস, যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, ছাত্রলীগ, বিদ্যুৎ বিভাগের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে লক গেইট ও বালুর চর এলাকায় সকাল ৬টা হতে দুপুর ৩টা প্রায় ১০ ঘন্টা পরিশ্রম করে সড়ক সচল করা সম্ভব হয়।

কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল লতিফের সঙ্গে মুঠো ফোনে আলাপকালে তিনি বিদ্যুৎ বিভাগের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সোলার প্রকল্পের জন্য কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়কে যে সকল বৈদ্যুতিক খুঁটি স্থাপন করা হয়ে থাকে তা অধিকংশই অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ। যেকোন মুহুর্তে এসব খুঁটি উপড়ে পড়ার আশ্ঙকার কথা আমরা আগে উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিভাগকে জানালেও তারা এই বিষয়ে কর্ণপাত করেনি।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফ আহমেদ রাসেল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বৃষ্টির কারণে পাহাড়ের মাটি নরম হয়ে গিয়েছে ফলে পাহাড় ধস হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি দ্রুত সড়ক থেকে মাটি অপসারণ করে সড়ককে সচল করে দিতে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কাপ্তাইয়ে, সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven − three =

আরও পড়ুন