খাগড়াছড়িতে গরীব ও দুস্থদের মাঝে ঈদের পোষাক বিতরণ 

fec-image

 

ঈদের আনন্দ সকলে মিলে উদযাপন করার লক্ষে খাগড়াছড়িতে গরীব ও দুস্থদের মাঝে ঈদের পোষাক বিতরণ করলেন, প্রতিমন্ত্রী পদ-মর্যাদার শরণার্থী বিষযক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলা শহরের কদমতলীস্থ এমপির বাসভবনে তিনি নিজে সমবেত জনতারর হাতে শাড়ি, লুঙ্গিসহ বিভিন্ন পোষাক বিতরণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রণ বিক্রম ত্রিপুরা ও সহ- সভাপতি মনির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সা: সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী, সাবেক পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মংক্যচিং চৌধুরী, সংসদ সদস্যের সহ-ধর্মিনী মল্লিকা ত্রিপুরা,  জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ক্রইসাঞো চৌধুরী ও সা: সম্পাদক শাহিনা আকতার, পেরাছড়া ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান সঞ্জীব ত্রিপুরা, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সা: সম্পাদক চন্দন কুমার দে ও সহ-সভাপতি নুরুল আজম, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ হোসেন এবং জেলা যুবলীগ নেতা মেহেদী হাসান হেলাল।

বস্ত্র প্রদানকালে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ অন্যদের হত্যা করে দেশের অগ্রযাত্রাকে চরম বাধাগ্রস্ত করেছে একাত্তরের পরাজিত হায়েনারা। টানা একুশ বছর ক্ষমতার বাইরে থাকার পর ১৯৯৬ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান। পাহাড়ের স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধে বিশ্বনন্দিত ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি সম্পাদন করেন। কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি-জামাত ক্ষমতায় এসে জননেত্রীসহ মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের অসংখ্য মানুষের জীবনকে বিপন্ন করে তুলেন।

তিনি বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উন্নত-সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে উন্নীত করার লক্ষে দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

এদিকে জেলার গুইমারা সেনা রিজিয়নের আওতাধীন সিন্দুকছড়ি জোনের উদ্যোগে অসহায় ও দুস্থ প্রতিবন্ধীদের মাঝে ঈদ উদযাপনের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে গুইমারা সাবজোন কার্যালয় প্রাঙ্গনে উপজেলার ৫১ জন অসহায় ও দুস্থ প্রতিবন্ধীদের মাঝে এ সহায়তা প্রদান করা হয়।

এসময় সাবজোন অধিনায়ক মুফতি মাহমুদ জয় এবং হাফছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চেীধুরী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × four =

আরও পড়ুন