খাগড়াছড়িতে বিরোধ ভুলে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে ঐক্যের মঞ্চে আ’লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

অবশেষে খাগড়াছড়ি আওয়ামী লীগের  দীর্ঘ তিন বছরের বিরোধের অবসান হয়েছে। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দীর্ঘদিনের বিভেদ সংঘাত ভুলে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা নেতৃত্বে এক মঞ্চে সমবেত হয় খাগড়াছড়ি আ’লীগ।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগ মুহূর্তে আ’লীগের দুই পক্ষের ঐক্যবদ্ধ হওয়াকে ইতিবাচক উদ্যোগ হিসেবে দেখছে দলটির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা । এতে ভোটের রাজনীতিতে খাগড়াছড়ি আসনে নৌকার বিজয় আরও বেশি নিশ্চিত হল বলে জানিয়েছে দলটির নেতারা।

রবিবার ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের কর্মসূচিতে দ্বিধা-বিভক্ত ভুলে নেতারা একত্রে মিছিল বের করেন। মিছিলটি খাগড়াছড়ি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। দুপুরে দলের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীকে সাথে নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে আসেন জাহেদুল আলম। এ সময় দলের নেতা কর্মীরা কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। দলীয় কার্যালয়ে নেতা কর্মীদের উপস্থিতিতে হাতে হাত ধরে দীর্ঘদিনের বিভেদ কোন্দল ভুলে একসাথে কাজ করার অঙ্গীকার করেন কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ও জাহেদুল আলম। এ সময় উভয়ই ৩০ ডিসেম্বর নৌকেকে জয়যুক্ত করার জন্য নেতা কর্মীদের কাজ করার আহ্বান জানান।

বর্ণাঢ্য এ র‌্যালিতে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধূরী, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আশুতোষ চাকমা, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল আলম, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শানে আলম, যুব বিষয়ক সম্পাদক ও পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক মো. দিদারুল আলম, উপ-দপ্তর সম্পাদক ও পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল চাকমা, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য খোকনেশ্বর ত্রিপুরা, পার্বত্য খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল, খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সভাপতি যতন কুমার ত্রিপুরা, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি টিকো চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন ফিরোজ ছাড়াও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে কুজেন্দ্র  লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন,‘ খালেদা জিয়ার ১শ দিনের কর্মসূচির নামে মানুষ খুন করেছিল। জামাত বিএনপি স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি। এরা ক্ষমতায় আসলে দেশে আবারো দুঃশাসন নেমে আসবে। এ সময় তিনি আ’লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন,‘ ভুল ক্রটি সবখানেই থাকে। আমাদের মধ্যেও সাংগঠনিক নানা বিষয়ে ভুল ক্রটি ছিল। এখন থেকে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করব। নির্বাচনের পর উভয় পক্ষের মামলা প্রত্যাহারসহ নানা ভুল ক্রটি যা ছিল তা দূর করার উদ্যোগ নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে খাগড়াছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়াকে কেন্দ্র  করে জেলা আ’লীগ সভাপতি ও কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলমের মধ্যে -কোন্দল বিরাজমান ছিল। এই নিয়ে উভয় পক্ষে একাধিক হামলা ও মামলার ঘটনা ঘটেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten + thirteen =

আরও পড়ুন