চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের কর্ম বিরতি: ভোগান্তিতে যাত্রীরা

চকরিয়া প্রতিনিধি:

চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে কতিপয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা যোগসাজস করে আকস্মিকভাবে বিআরটিসি পরিবহণের বেশ কয়েকটি বাস গাড়ি প্রবেশ করার দায়ে ওই সড়কের পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ একযোগে চলাচলরত সকল পরিবহন বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়ে কর্ম বিরতি পালন করেছে।

সড়কে যাতায়তে পরিবহণ বন্ধ থাকায় চকরিয়া, লামা ও আলীকদমে অবস্থানরত যাত্রীরা দিনব্যাপী চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। আকস্মিকভাবে লামা-আলীকদম সড়কে বিআরটিসি বাস গাড়ি প্রবেশ করার কারণে শ্রমিক পরিবহণে কর্মরত সদস্যরা ফুঁসে উঠেছে। এ নিয়ে শ্রমিকদের মাঝে চলছে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম আরকান সড়ক পরিবহণের অন্তভুক্ত চকরিয়া-লামা-আলীকদম-থানচি সড়কসহ বিভিন্ন অভ্যান্তরীণ সড়কে ১৯৮৩ সাল থেকে ওই সড়কে স্থানীয় বাসা গাড়ী, জিপসহ নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে বিভিন্ন পরিবহণ চলে আসছিল। হঠাৎ করে শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে লামা ও আলীকদম উপজেলার কতিপয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা ওই সড়ক পরিবহণের মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সাথে কোন ধরণের পরামর্শ-আলোচনা ছাড়াই ৪-৫টি বিআরটিসি বাস গাড়ি প্রবেশ করান। গাড়ি গুলো সড়কে প্রবেশ করার সাথে সাথে সড়কের মালিক-শ্রমিকরা ঐক্য হয়ে দিনব্যাপী চকরিয়া শহীদ আবদুল হামিদ পৌর টার্মিনালে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ কর্ম বিরতি পালন করে। ওই দিন বিকালে চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড় কমিটির শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিক আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রফিক উদ্দিনের সঞ্চলনায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অবস্থানরত শ্রমিকদের উদেশ্যে বক্তব্য রাখেন আরকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জহিরুল ইসলাম।

এছাড়াও আরও বক্তব্য রাখেন আরকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক কামাল আজাদ, চকরিয়া-লামা-আলীকদম বাস মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল হোসেন কোম্পানি, সাধারণ সম্পাদক সাহাব উদ্দিন মনু, চকরিয়া-লামা-আলীকদম জীপ মালিক সমিতির সভাপতি জামশেদ উদ্দিন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমদ, সহ-সম্পাদক মুহিবুল্লাহ প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের কর্ম বিরতি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + 4 =

আরও পড়ুন