“দীর্ঘদিন ধরে আমার কাছ থেকে আনোয়ার হোসেন বানুসহ তার কয়েক সহযোগী দলীয় প্রভাব দেখিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। ”
রাঙামাটিতে

চাঁদাবাজি মামলায় আওয়ামী লীগ নেতাসহ তিনজন কারাগারে

fec-image

রাঙামাটিতে চাঁদাবাজি মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন বানু (৬০) ও তার ছেলে মো. রুবেল (৩৫) এবং মো. মোরশেদ আলমসহ (৩৪) তিন জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৯জুলাই) দুপুরে রাঙামাটি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তাদের বিরুদ্ধে করা সিআর মামলায় (নম্বর ১৩৩/১৯) জামিন চেয়ে আত্মসমর্পণ করতে গেলে জ্যেষ্ঠ বিচারক মো. বেলাল হোসেন তাদেরকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। এই মামলায় খোরশেদ আলম (৩৬) ও রোমান (২৮) নামে আরও দু’জন পলাতক রয়েছেন।

সাবেক পৌর কমিশনার আনোয়ার হোসেন বানু বর্তমানে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও রিজার্ভ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি। ওই মামলায় আরও দুই আসামি পলাতক। পুলিশ ও আদালত সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, একই এলাকার বাসিন্দা অটোরিকশা চালক মো. মঞ্জুর আলম বাদী হয়ে আনোয়ার হোসেন বানুসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে ৩৮৫ ধারায় সুনির্দিষ্ট অভিযোগে রাঙামাটির আদালতে একটি চাঁদাবাজির মামলা করেন। মামলায় জামিন চেয়ে আত্মসমর্পণ করতে আদালতে হাজির হন, ওই তিন অভিযুক্ত ব্যক্তি। এতে তাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকায় জামিন নামঞ্জুর করে তিন জনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত। খোরশেদ আলম (৩৬) ও রোমান (২৮) নামে আরও দুই আসামি পলাতক।

মামলার বাদী মো. মঞ্জুর আলম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমার কাছ থেকে আনোয়ার হোসেন বানুসহ তার কয়েক সহযোগী দলীয় প্রভাব দেখিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। বানু কমিশনারের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট হয়ে আমি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করতে বাধ্য হয়েছি।

রাঙামাটি কোতয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, শহরের রিজার্ভ বাজারের বাসিন্দা অটোরিকশা চালক মো. মঞ্জুর আলম বাদী হয়ে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতার পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + sixteen =

আরও পড়ুন