চ্যাম্পিয়ন দিদার বলি

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

ঐতিহ্যবাহী কক্সবাজার ডিসি সাহেবের বলি খেলায় ৬৪ তম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন রামুর দিদার বলি। এ নিয়ে ১৫ বারের মত বিজয়ী হন তিনি। সম্প্রতি বান্দরবানে চ্যাম্পিয়ন হওয়া মহেশখালীর শফি বলিকে সহজে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হন তিনি।  এছাড়া যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হয়েছে দুইবার।

শনিবার বিকালে ব্যাপক উৎসব মুখর পরিবেশে খেলার শেষ দিন কক্সবাজার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামে ছিল দর্শকের উপচে পড়া ভিড়। ঐতিহ্যবাহী ডিসি সাহেবের দুই দিনব্যাপী বলি খেলা শুক্রবার শুরু হয়। থেকে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার দর্শক ভিড় জমায় স্টেডিয়ামে। সকাল থেকে আগ্রহ নিয়ে প্রিয় বলির খেলা দেখতে আসা দর্শকের অপেক্ষার পালা শেষ হয় ঘড়ির কাটা যখন সন্ধ্যা ৫.৩০টায়। শুরু হয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য দুই বলির লড়াই। শুরুতেই মাত্র ৯ সেকেন্ডের মাথায় দুর্বল মহেশখালী শফিকে দুমড়ে মুচড়ে ফেলে দেয় দিদার। এর দুই মিনিট পর আবারও শফিকে পেচিয়ে ধরে সজোরে আচাড় মেরে মাটিতে লুটোপুটি খাওয়ায় দিদার। হেভিয়েট দিদার বলীকে শিরোপার স্বাদ নিতে লাগলো মাত্র সাড়ে ৪মিনিট।

এসময় আর অপেক্ষা করতে হয়নি। শফির পিঠ সহজেই মাটির সাথে মিশিয়ে দেয় দুর্দান্ত কৌশল নিয়ে মাঠে নামা দিদার বলী। তখন হাজার হাজার দর্শকের কণ্ঠে ধ্বনিত হয় প্রিয় বলী দিদারের নাম। এবার প্রতিযোগিতার ২নং মেডেলে চকরিয়া ডুলাহাজারার রমিজ বলীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হন মহেশখালীর মো. হোছন বলী। ৩নং মেডেলে সদর উপজেলার ছনখোলার মোস্তাক বলীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হন মহেশখালীর আরেক বলী রাসেল।

পরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মাহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অনুপ বড়ুয়া অপু। এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের উপ-পরিচালক তসলিমা আক্তার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এড. একে আহমদ হোসেন, সহ সভাপতি রেজাউল করিম, অর্থ সম্পাদক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল খালেক, যুব মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আয়েশা সিরাজ।

বলী খেলা ও বৈশাখী মেলা বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব কাউন্সিলর হেলাল উদ্দিন কবিরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরণীতে আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন, সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক হারুনুর রশীদ, স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠান ডিজিটাল হাসপাতালের চেয়ারম্যান ওসমান গণি, ডিএসএ‘র সদস্য রতন দাশ, আলহাজ্ব শফিকুর রহমান কোম্পানী, রাশেদ হোসাইন নান্নু, প্রভাষক জসিম উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম মুকুল, খালেদ আজম বিপ্লব, আজমল হুদা, আলী রেজা তসলিম, ফরহাদ হোসেন, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদিকা খালেদা জেসমিন।

পুরস্কার বিতরণীতে ১ম মেডেলে চ্যাম্পিয়ন ১৫ হাজার, রানার আপ ১০ হাজার, ২য় মেডেলে চ্যাম্পিয়ন ১০ হাজার, রানার আপ ৭ হাজার, ৩য় মেডেলে চ্যাম্পিয়ন ৭ হাজার ও রানার আপ ৫ হাজার টাকা প্রাইজ মানি দেয়া হয়। সেই সাথে প্রতি চ্যাম্পিয়ন-রানার আপ বলীকে ট্রপিও দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ৫জন সাবেক কৃতি বলীকে দেয়া হয়েছে সম্মাননা। বলী খেলাকে কেন্দ্র করে স্টেডিয়াম এলাকা জুড়ে বসেছে বৈশাখী মেলা। মেলায় নাগরদোলা, হস্ত, কুঠি, তাঁত, মৃৎ শিল্পসহ দেশীয় পণ্যের অর্ধশতাধিক স্টল স্থান পেয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine + twelve =

আরও পড়ুন