দাঁত মাজার সঠিক সময়

লাইফস্টাইল ডেস্ক:

দাঁতের গুরুত্ব কে না জানে? গুরুত্বও যেমন দাঁতের জত্নও নিতে হয়ত তেমনই। প্রবাদ আছে ‘মানুষ দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা বুঝে না’ প্রবাদ টা দাঁত নিয়ে হলেও ব্যবহার হয় সব ক্ষেত্রেই। শুতরাং দাঁতের যত্ন নিতে সবচে গুরুত্বপূর্ণ হলো, নিয়মিত দাঁত পরিস্কার রাখা।

চিকিৎসা-বিজ্ঞানের তথ্যানুসারে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত মাজার ‍উপকারী দিকগুলো এখানে দেওয়া হল।

মুখের কোনায় জমে থাকা খাবার থেকে ব্যাকটেরিয়ার বিস্তার ঘটে। ব্যাকটেরিয়ার কারণে দাঁতে অ্যাসিডিক উপাদানের সৃষ্টি হয়। ফলে দাঁতের এনামেল ভেঙে গিয়ে ক্যাভিটি ও দাঁতের ক্ষয় হতে পারে।

দাঁত না মেজে ঘুমাতে গেলে প্লাক জমাট বেঁধে শক্ত হওয়া শুরু করে। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এটা আরও শক্ত হতে থাকে। একটা পর্যায়ে তা ব্রাশ বা ফ্লস ব্যবহার করেও সরানো যায় না। এই প্লাকের কারণে মুখে দুর্গন্ধ হয়, মাড়িতে সংক্রমণ, রক্ত পড়া ও ফোলাভাব দেখা দিতে পারে।

রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত না মাজলে প্লাকের জন্ম হয় এবং সারা রাতে তা নিরবিচ্ছিন্নভাবে বাড়তে থাকে। এর ফলে, উৎপাদিত অ্যাসিড ব্যাকটেরিয়ায় পরিণত হয়।

রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ব্রাশ করার উপকারিতা:

অ্যাসিড উৎপাদন কমায়: মুখে সারাক্ষণই অ্যাসিডের উৎপাদন হয়। থুথু বা লালায় থাকা ক্যালসিয়াম অ্যাসিড নিষ্ক্রিয় করে। রাতে লালা’র উৎপাদন ধীর হয়।

রাতে ব্রাশ করলে টুথপেস্টে উপস্থিত ফ্লোরাইডের কারণে স্যালাইভা নিঃসরণ নিশ্চিত হয়। এটা দাঁত জারিত হওয়া থেকে রক্ষা করে।

ব্যাকটেরিয়ার বিস্তার কমায়: মুখের লালা ব্যাকটেরিয়ার বিস্তার কমায়। তাই মুখের লালা’র নিঃসরণ নিশ্চিত করতে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত ব্রাশ করা দরকার।

খাবারের অবশিষ্টাংশ দূর করা: সারা রাত মুখের কোনায় খাবারের কণা জমে থাকে। জমে থাকা খাবার মুখে দুর্গন্ধ তৈরির পাশাপাশি ক্ষতিও করে। তাই ঘুমাতে যাওয়ার আগে মুখ পরিষ্কার করতেই হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − 2 =