দীঘিনালার মাইনী নদীতে ফুল ভাসায় পাহাড়ি তরুণ-তরুণীরা

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

মাইনী নদীতে ফুল ভাসিয়ে পুরনো বছরকে বিদায় জানিয়েছে পাহাড়ের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর লোকজন।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) ভোরে ফুল ভাসানোর আয়োজন করে দীঘিনালা উপজেলার রিবেং যুব সংঘ।

এছাড়াও বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। ফুল ভাসানো শোভাযাত্রায় বিভিন্ন বয়সের পাহাড়ি নারী-পুরুষ অংশ নেয়।

শোভাযাত্রাটি মাইনীতে গিয়ে শেষ হয়। পরে মাইনী নদীতে ফুল ভাসায় পাহাড়ি তরুণ-তরুণীরা।

জানা যায়, পুরনো বছরের সকল গ্লানি মুছে ফেলতে বাংলা বর্ষপুঞ্জির চৈত্র মাসের ২৯ তারিখে পানিতে ফুল ভাসানো হয়।

৩০ চৈত্র বিজুর মূল আয়োজন। এদিন বাড়িতে বাড়িতে রান্না হয় পাজন (বিভিন্ন সবজি দিয়ে রান্না করা বিশেষ সবজি)। বাড়িতে বাড়িতে চলে অতিথি আপ্যায়ন। নতুন পোষাক পরে ঘুরে বেড়ায় পাহাড়িরা।

অন্য দিকে ১৪ এপ্রিল অর্থাৎ ১ বৈশাখ নতুন বছরকে বরণ করা হবে। এদিনকে চাকমা ভাষায় বলা হয় গজ্যাপজ্যাদিন, ত্রিপুরা ভাষায় বিসিকাতাল, মারমা ভাষায় সাংগ্রাই। এদিন বাড়িতে ধর্মীয় পুরহিত এনে পূণ্য কাজের মাধ্যেমে নিজেরা পরিশুদ্ধ হন আদিবাসীরা। বাড়িতে বাড়িতে বুড়োবুড়িদের দাওয়াত দেয়া হয়। এদিনও খানাপিনা চলে বাড়িতে বাড়িতে।

১৫ এপ্রিল থেকে শুরু হবে মারমাদের সাংগ্রাই উৎসব। সাংগ্রাইয়ের পবিত্র জল ছিটিয়ে পুরনো বছরের গ্লানি মুছে নতুন বছরকে বরণ করেন মারমারা। তাদের বাড়িতে বাড়িতে চলে নানা খাবারের আয়োজন।

ঘটনাপ্রবাহ: দীঘিনালার মাইনী নদীতে ফুল ভাসায় পাহাড়ি তরুণ-তরুণীরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × four =

আরও পড়ুন