দীঘিনালায় এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালা উপজেলার ১নং মেরুং ইউনিয়নের সোবহানপুর গ্রামে সৌরভ আহমেদ(১৬) নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার সোবহানপুর গ্রাম থেকে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে। নিহত কিশোর একই এলাকার বাকপ্রতিবন্ধী হারুন মিয়ার ছেলে।

সৌরভ আহমেদের লাশ উদ্ধার করে থানায় আনার পর তার জেঠা নুরুল আমিন বলেন, ” সৌরভের নিকট দশ হাজার টাকা ছিলো। কয়েকদিন আগে সে দশ হাজার টাকা দিয়ে একটি গরু কেনার কথা বলেছিলো। এই টাকা সে সব সময় নিজের কাছে রাখতো। এ টাকাই তার মৃত্যুর কারণ হলো।

জানাযায়, বুধবার উপজেলার সোবহানপুর গ্রামের একটি চা দোকান থেকে রাত সাড়ে আটটায় বাড়ীর দিকে রওয়ানা দেয়। এরপর সে নিখোঁজ হয়। এদিকে রাতে খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি। পরে বৃহস্পতিবার সকালে পাশ্ববর্তী লেবু বাগান থেকে পুলিশ সৌরভ আহমেদ এর লাশ উদ্ধার করে। এসময় তার শরীরে বিভিন্ন স্থানে রড দিয়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

স্থানীয় রুবেল আহম্মদ জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকালে আমি ও আমার স্ত্রী সকালে সবজি উঠানোর জন্যে জমিতে যাওয়ার সময় লেবু বাগানের পাশে রাস্তায় সৌরভের লাশ পড়ে থাকতে দেখি। পরে স্থানীয়দের জানাই।

নিহত সৌরভ আহমেদের জেঠা নুরুল আমিন জানান, সৌরভ আহমেদের মা মানসিক প্রতিবন্ধী এবং বাবা বাকপ্রতিবন্ধী। গত পাঁচ বছর আগে সৌরভ আহমেদের মা নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। সৌরভের বড় ভাই সজিব জেলার পানছড়ি এলাকার দিনমজুরের কাজ করে।

দীঘিনালা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উত্তম চন্দ্র দেব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করি। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। তবে কে বা কারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা খতিযে দেখা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven + twenty =

আরও পড়ুন