বিশ্ব শরণার্থী দিবসে নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বক্তারা

দ্রুত স্বদেশে ফিরে যেতে আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়ের হস্তক্ষেপ চায় রোহিঙ্গারা

fec-image

বিশ্ব শরণার্থী দিবস উপলক্ষ্যে মিয়ানমার হতে বাস্তুচ্যুত হয়ে টেকনাফের একমাত্র নিবন্ধিত নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গারা র‌্যালী ও পথসভা করেছে। এ সব বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের সম্পূর্ণ নাগরিক সুবিধা দিয়ে স্বদেশে ফিরিয়ে নিতে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন  তারা।

তারা বলেন, বিশাল জনবসতিপূর্ণ এই বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের ভার বহন করা সম্ভব না। আমাদের দ্রুত সময়ের মধ্যে নাগরিক সুবিধা দিয়ে স্বদেশে প্রত্যাবাসন করা না হলে বিশ্বের তৃতীয় কোন দেশে হস্তান্তরের জন্য বিশ্ব সম্প্রদায়ের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার হ্নীলা নয়াপাড়া রেজিষ্টার্ড শরণার্থী ক্যাম্প অভ্যন্তরে কমিউনিটি সেন্টারের সামনে হতে অনুষ্ঠিত র‌্যালীতে ইউএএইচসিআর, এনজিও সংস্থা থাই এর কর্মকর্তারা সংহতি প্রকাশ করে র‌্যালীতে অংশ-গ্রহণ করেন। উক্ত র‌্যালী রেজিষ্টার্ড ক্যাম্প প্রদক্ষিণ শেষে পথসভায় মিলিত হয়।

ইউএনএইচসিআরের কর্মকর্তা এন্ড্রুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নয়াপাড়া ক্যাম্প ইনচার্জ আব্দুল হোছাইন। থাইয়ের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর ইমরান খানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন এনজিও ফোরামের শিশির দাশ, অধরার আনোয়ার, থাইয়ের মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন, এসিএফের এনামুল হক, রোহিঙ্গাদের পক্ষ হতে খালেদা বেগম, আবু ছিদ্দিক, আনসার উল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।িএদিকে গত বছরের মতো উপজেলার হ্নীলা দমদমিয়া, জাদিমোরা, শালবাগান, লেদা, আলীখালী, হোয়াইক্যং পুটিবনিয়া চাকমারকূল এবং উপকূলীয় বাহারছড়া শাপলাপুর অনিবন্ধিত ক্যাম্প সমুহে বিশ্ব শরণার্থী দিবসের কোন কর্মসুচি পালিত হয়নি।

এই ব্যাপারে লেদা ক্যাম্প ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম জানান, উক্ত বিষয়ে কোন নির্দেশনা না আসায় আমরা এই দিবস পালন করিনি।

ঘটনাপ্রবাহ: টেকনাফ, মিয়ানমার, শরণার্থী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 − three =

আরও পড়ুন