প্রতিনিয়ত প্রাঁণনাশের হুমকি!

নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে আব্দুল মান্নানের পরিবার

fec-image

বসত ভিটার জমি জোরপূর্বক দখল করার ঘটনায় বিবাদি বাঁধা দিতে গেলে নিজের মামা আব্দুর জব্বারসহ তাঁর ছেলে মেয়েরা আব্দুল মান্নান ও তাঁর স্ত্রী হালিমা বেগমকে মারধর করাসহ রক্তাক্ত জখম করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি প্রাঁণনাশের হুমকিসহ নানা ভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।

এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন সহায়তা পাননি ভুক্তভোগী পরিবার।

আব্দুল মান্নান জানান, আদালতের দ্বারস্থ হলে উল্টো অত্যাচার নেমে এসেছে তাদের উপর।

আব্দুল মান্নানের স্ত্রী হালিমা বেগম এ প্রতিবেদককে জানান, বসত ভিটার জায়গা জোরপূর্বক দখলে বাঁধা দিলে গত ১৫ এপ্রিল সকালে তাঁর স্বামী ও তাকে ধারালো অস্ত্র  ও লোহার রড দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে আব্দুর জব্বার (৫৫) সহ তার ছেলে মহিউদ্দিন অয়ন (২৮), নয়ন উদ্দিন বাদশা (৩০) ও রিয়াদ (১৮)।

এ ঘটনায় হালিমার স্বামী চারজনের বিরুদ্ধে রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আদালত থেকে প্রভাবশালীর ছত্রছায়ায় আব্দুর জব্বার ও তার ছেলে নয়ন উদ্দিন বাদশা জামিনে মুক্তি পায়। আর বাকি দুইজন মহিউদ্দিন অয়ন ও রিয়াদ বীরদর্পে এলাকায় ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ রহস্যজনক কারণে তাদের গ্রেফতার করছে না। আসামীরা ক্ষমতাসীন দলের ক্ষমতা দেখিয়ে প্রতিনিয়ত প্রাঁণনাশের হুমকিসহ উল্টো মামলা ও বসবাসরত জায়গায় কাজকর্মে বাঁধা প্রদান করেছে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ২০১৫ সালেও একটি কাঠের ব্রিজ নিমার্ণ নিয়েও তাকে মারধর করে রক্তাক্ত করা হয়েছিলো।

এদিকে রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে আব্দুল মান্নান উল্লেখ করেছেন, ২০১৮ সালে তিনি স্বত্ব হস্তান্তর মূলে বিবাদির কাছে ৮শ’ ৩৩ বর্গফুট জায়গা বিক্রি করেন। পরবর্তীতে বিবাদিগণ প্রায় সময় তাঁর বিক্রিত জায়গার চেয়ে বেশি জায়গা দাবি করে দখল করার চেষ্টা করে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে চলতি বছরের গত ১৫ এপ্রিল (সোমবার) সকালে তার বাসার পিছনে কাজকর্ম করার জন্য পাশ্ববর্তী কাপ্তাই হ্রদে একটি কাঠের সিঁড়ি নির্মাণ করতে গেলে বিবাদীগণ তাকে সিঁড়ি নিমার্ণ করতে বাঁধা প্রদান করে তার জায়গা বলে দাবি করে। এই নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে বিবাদিগণ লোহার রড ও বেলচা দিয়ে তাকে প্রাঁণে মেরে ফেলার জন্য এগিয়ে আসলে পাশে থাকা তার স্ত্রী হালিমা বেগম তাকে রক্ষা করার চেষ্টা করলে বিবাদিরা হালিমা বেগমকে মাথা আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে মাটিতে ফেলে দেয় এবং এলোপাতাড়ি মারধর করে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম করে। আহত আব্দুল মান্নান ও তার স্ত্রী হালিমা বেগম সে সময় চিৎকার করতে থাকলে বিবাদিগণ ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এতে আব্দুল মান্নান প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে আসলেও তার স্ত্রীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

কিছুদিন পরে তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি আসলেও বিবাদিরা আবারও নিত্য হুমকী দিয়ে আসছে বলে হালিমা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, তার এক ছেলে স্বামীর ব্যবসা দেখভাল করে এবং মেয়ে রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজে মাস্টার্স পড়ছে। বর্তমানে তিনি আতঙ্কের মধ্যে দিন যাপন করছেন।

এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল হক রনি জানান, এ ঘটনায় দুইজন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং বাকি দুইজন পলাতক রয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ: রাঙ্গামাটি, হুমকী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − 7 =

আরও পড়ুন