পরিবারের অসচেতনতার কারণেই গ্রামে নারী ও শিশু নির্যাতন বাড়ছে

fec-image

বাল্যবিয়ে, ইভটিজিং এবং অসচেতন পরিবারের কারণেই গ্রামে গ্রামে নারী ও শিশু নির্যাতন দিনদিন বাড়ছে বলে অভিমত বিশিষ্ট জনদের।

তারা বলছেন, আজ নারীরা অবহেলার শিকার। এ সব কারণেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও নারীদের বিষয়ে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছেন। তিনি এ ব্যাপারে কাজ করছেন। আজ সময় এসেছে সব কিছুর উর্ধ্বেই নারীর ইজ্জত-আব্রু ও সম্মান ঠিক রাখার। এর মাধ্যমে প্রতিটি ঘরে শান্তি বিরাজ করবে। দেশের মানুষ থাকবে সূখে।

রোববার (২৩ জুন ) সকাল ১১ টায় রামুর কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে ইউনিয়ন পর্যায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সভায় বক্তারা এ সব কথা বলেন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন রামুর উপজেলা ইপসার আস্থা প্রকল্পের কেস ম্যানেজার পপি আক্তার। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মো: নোমান ইসমাঈল। বক্তব্য রাখেন ইপসার সোস্যাল মোবাইলাজেশন অফিসার ইকবাল হোসেন, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সাংবাদিক মাঈনুদ্দিন খালেদ, ইপসার কেস ওর্য়াকার মোমেনা আক্তার, কমিটির সদস্য নুরুল আলম মেম্বার, মুহাম্মদ ইউনুছ মেম্বার, ইউনিয়ন পরিষদের সকল মহিলা সদস্য, গর্জনিয়া বাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম মো: মহিউদ্দিন ও দফাদার আবদুল মান্নান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 5 =

আরও পড়ুন