পেকুয়ায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ

fec-image

পেকুয়ায় এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের চেষ্টা চালিয়েছে বখাটে এক যুবক। এ সময় ধর্ষণ করতে ব্যর্থ হয়ে ওই কিশোরীকে ব্যাপক মারধর করে আহত করে। ভিকটিম পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের চেরাংঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে রাতে পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ভিকটিম জানায়, বিগত ৩ বছর আগে একই এলাকার মদু মিয়ার ছেলে হাসানের সাথে প্রেমের সম্পর্ক হয়। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমার সাথে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করে। সম্প্রতি সে শঠামির আশ্রয় নেয়। ওইদিন রাতে আমার বাড়িতে হানা দেয়। এ সময় জোরপুর্বক আমাকে ধর্ষন চেষ্টা চালায়। এক পর্যায়ে ব্যর্থ হয়ে আমাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে আঘাত করে।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন ভিকটিমের আর্তচিৎকারে আমরা এগিয়ে এসে হাসানকে আটক করি। হাসান একজন বখাটে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মেয়েটির ক্ষতি করার চেষ্টা করে।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তবে পুলিশ আসার আগেই সমাজপতি উলামিয়া জোর করে হাসানকে নিয়ে যায়। ইউপি সদস্য নুরুল আজিম জানায় সকালে বিষয়টি জেনেছি। মেয়েটি অসহায়। মা হারা মেয়ে। শুনেছি বিষয়টি সমাধা করার আশ্বাস দিয়ে সমাজপতি উলামিয়া ছেলেটাকে নিয়ে গেছে। দেখি কি সমাধা হয়।

এ ব্যাপারে পেকুয়া থানার এস. আই মকবুল হোসেন জানায় খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। ছেলেকে পাওয়া যায়নি। বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই ছেলেকে কয়েকজন লোক নিয়ে গেছে। দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি মেয়ের পক্ষকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − 11 =

আরও পড়ুন