“আগামী ১৬ অক্টোবর ফ্রান্সে মুক্তি পাচ্ছে সিনেমা ‘ফাহিম’। শুক্রবার (১৪ জুন) ছবির ট্রেলার প্রকাশ পেয়েছে।”

ফরাসি সিনেমায় বাংলাদেশি ফাহিম

fec-image

বাংলাদেশি তরুণ ফাহিম মোহাম্মদ একজন দাবাড়ু। তিনি ১০ বছর আগে বাংলাদেশ থেকে সুদূর ফ্রান্সে গিয়ে অবৈধভাবে পালিয়ে থেকেছেন। সেই ফাহিম মোহাম্মদকেই এবার দেখা যাবে ফ্রান্সের সিনেমায়। ফ্রান্সে তার জীবনী নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ফরাসি ভাষার চলচ্চিত্র!

২০০০ সালে ডেমরায় জন্ম নেন ক্ষুদে দাবাড়ু ফাহিম। তাঁর জীবনী নিয়ে পিয়ের-ফ্রাঁসোয়া মার্তা-লাভালের ছবির নামও ‘ফাহিম’। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন প্রবাসী আহমেদ আসাদ। আগামী ১৬ অক্টোবর ফ্রান্সে মুক্তি পাচ্ছে সিনেমা ‘ফাহিম’। শুক্রবার (১৪ জুন) ছবির ট্রেলার প্রকাশ পেয়েছে।

‘ফাহিম লে ফিল্ম’ নামে একটি অফিশিয়াল ওয়েব সাইটে চলচ্চিত্রটির গল্প সংক্ষেপ প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়, ফাহিম নামের ছেলেটি তার বাবা নূরে আলমের সাথে প্যারিস এসে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করলে বাবা-ছেলের ঠাঁই হয় একটি আশ্রয়শিবিরে৷ সেখানে সরকারি মাসোহারা আর টুকটাক কাজকর্ম করে কাটতে থাকে তাদের দিন৷ এর দুই বছর পর তাদের রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন ‘চূড়ান্তভাবে’ প্রত্যাখ্যাত হলে তাদের ফ্রান্স ছেড়ে চলে যেতে বলা হয়৷ কিন্তু তারা সেটা না করে পালিয়ে বেড়াতে থাকেন৷ এরই মধ্যে একটি দাবা টুর্মামেন্টে অংশ নিয়ে এক দাবা প্রশিক্ষকের নজরে পড়ে ফাহিম৷ পাল্টে যেতে থাকে তাদের জীবন।

একদিকে টিকে থাকার সংগ্রাম, অন্যদিকে দাবা খেলা। ঘরোয়া দাবা ছাড়াও ফ্রান্সের হয়ে ইউরোপ জুনিয়র দাবায় চ্যাম্পিয়ন ও বিশ্ব জুনিয়র দাবায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে সংবাদপত্রের শিরোনামে ঠাঁই করে নেন ফাহিম। তাকে নিয়ে আলোচনা, তর্ক, বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। শেষ পর্যন্ত দাবা খেলেই ফ্রান্সের স্থায়ী নাগরিকত্ব লাভ করেন ফাহিম।

এদিকে ফাহিমকে নিয়ে শুধু ফ্রান্সের সংবাদ মাধ্যম নয়, ২০১২ সালের দিকে বাংলাদেশের মিডিয়াতেও বেশ আলোচনা হয়। ২০১৪ সালে তার জীবনী নিয়ে একটি বই প্রকাশিত হয়।

‘অ্যা ক্ল্যানডেস্টাইন কিং’ নামের বইটি অবলম্বন করে নির্মিত হয়েছে ‘ফাহিম’ চলচ্চিত্রটি। দাবা দিয়ে ফ্রান্সের মানুষের মন জয় করার কাহিনী আর ফাহিম ও তার বাবার ব্যক্তিগত সংগ্রামের গল্পই উঠে আসবে এই ছবিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × three =

আরও পড়ুন