“ ‘আমি রেকর্ডের জন্য নয়, দেশের জন্য গোল করি। শুনে আমি অনেক খুশি। আগামীতে এমন গোল আরও করতে চাই।’”

ফিফার সেরা গোলের তালিকায় মনিকা চাকমার গোল

fec-image

অনূর্ধ্ব-১৯ বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়ের ম্যাচে ভলিতে দুর্দান্ত গোল করেছিলেন বাংলাদেশের মনিকা চাকমা। গোলটি জায়গা করে নিয়েছে ফিফার ফ্যানস ফেবারিটের সেরা পাঁচে। ফিফা মনিকাকে সম্বোধন করেছে ‘ম্যাজিকাল চাকমা’ নামে।

বাংলাদেশের এক মেয়ের পায়ে গোল ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। শেষ পর্যন্ত এক বাংলাদেশির বদৌলতে ‘ফ্যানস ফেবারিট’-এর সৌজন্যে গোলটি পৌঁছে গেছে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার দরবারে। শুধু তাই নয়, এবারের সপ্তাহে ‘ফ্যানস ফেবারিট’ নামের ফিফার ক্যাটাগরিতে প্রকাশ পাওয়া পাঁচটি সেরা ঘটনার একটি বাংলাদেশের মেয়ের গোল।

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ মহিলা গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় পায় বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ওই ম্যাচের বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগে চোখ কপালে তুলে দেওয়ার মতো এক গোল করেন মনিকা। রাত জেগে যারা ইউরোপিয়ান ফুটবলের স্বাদ নিয়ে থাকেন, তাদের চোখেও বিস্ময়ের রেণু ছড়িয়েছেন রাঙামাটির এই তরুণী।

অনূর্ধ্ব-১৯ বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়ের ম্যাচে চোখ ধাঁধানো গোলটি করেছিলেন বাংলাদেশের মিডফিল্ডার মণিকা চাকমা। ফিফা মনিকাকে ‘ম্যাজিকাল চাকমা’ হিসেবে উপাধি দিয়েছে। কেমন ছিল মণিকার সেই গোল?

প্রথমে একজনকে গতিতে পেছনে ফেলে বাংলাদেশের নাম্বার সিক্স আরেক ডিফেন্ডারের মাথার ওপর থেকে হেড করে বলটা নিজের সুবিধামতো জায়গায় নিয়েছেন। বিপদ বুঝে মণিকাকে থামানোর জন্য এগিয়ে এসেছিলেন প্রতিপক্ষ দুজন খেলোয়াড়। কিন্তু মণিকা সুযোগ দিলে তো! পেনাল্টি বক্সের ঠিক বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো ভলিতে বল চলে গেল পোস্টের দুরূহ কোণে। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক ঝাঁপ দিয়েও বলের নাগাল পাননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসা তো হবেই।

গোলটি জায়গা করে নিয়েছে ফিফার ভক্তদের পছন্দের সেরা তালিকায়। প্রতি সপ্তাহের ফুটবলের সেরা গোল বা মাঠের সেরা মুহূর্তের ছবি বা ভিডিও চেয়ে থাকে ফিফা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘উই লিভ ফুটবল’ হ্যাশ ট্যাগের মাধ্যমে যা পৌঁছে যায় ফিফার দরবারে।

সেখান থেকে বাছাই করে নেওয়া হয় সপ্তাহের সেরা মুহূর্তগুলোকে। এবারের সপ্তাহে ‘ফ্যানস ফেবারিট’ নামের ফিফার এই ক্যাটাগরিতে প্রকাশ পাওয়া পাঁচটি সেরা ঘটনার একটি মনিকার করা বিস্ময়কর গোলটি। গতকাল ফিফা ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে তালিকাটি।

মঙ্গোলিয়ার বিরুদ্ধে করা গোলটি যে ফিফার দর্শক জড়িপে সেরা হয়েছে তা কী জানেন? ‘হ্যা। কিছুক্ষণ আগে আমাকে বলেছেন স্যার (বাফুফের সাধারণ সম্পাদক)’ -জবাব মনিকার। তো কেমন লাগছে আপনার? মনিকা চুপ। ফোনের অন্য প্রান্ত থেকে কোনো কথাই আসছে না। ওই যে, কথা বলায় অপটু। কয়েক সেকেন্ড পর মনিকার জবাব ‘আমি রেকর্ডের জন্য নয়, দেশের জন্য গোল করি। শুনে আমি অনেক খুশি। আগামীতে এমন গোল আরও করতে চাই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + 19 =

আরও পড়ুন