বরকলে এক প্লাটুন লীডারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

fec-image

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

জেলার বরকল উপজেলার আইমাছড়া ইউনিয়নের কলাবুনিয়াস্থ ২৮নং হিল ভিডিপি (গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী’র প্লাটুন লীডার মো. আবদুচ ছালামের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

একই প্লাটুনের ভুক্তোভোগী কিছু সদস্য ও সুবিধা প্রত্যাশীরা এ অভিযোগ তুলেছেন।

প্লাটুনের ভুক্তোভোগী ও সুবিধা প্রত্যাশীরা জানান, গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী’র বরকলের ২৮নং প্লাটুনের লীডার চাকরি দেয়াসহ কর্মরতদের নানা সুবিধা করে দেয়ার নামে বেশ কিছু সদস্যের কাছ থেকে নানা সুবিধা নিয়েছেন। চাকরি প্রত্যাশীদের কাছ থেকে নগদ টাকা গ্রহণ করে এবং কর্মরতদের বেতন থেকেও কমিশন নিচ্ছে। প্লাটুন লীডার ক্ষমতার অপব্যবহার করছে বলেও জানিয়েছেন তারা।

অভিযোগকারী জুলমত মোড়ল বলেন, হিল ভিডিপির নিয়ম অনুযায়ী ৫৯ বছর পর্যন্ত প্লাটুনে থাকা যায়। তার চাকরির মেয়াদ পূর্ণ হওয়ায় তার ছেলে আজগর আলীকে প্লাটুনে সদস্য হিসাবে ভর্তি করে দেন। চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে তার খালার বাড়িতে বেড়াতে গেলে চট্টগ্রামের চান্দঁগাও থানা পুলিশ রাস্তায় এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করার সময় তার ছেলে আজগর আলীকেও সন্দেহজনকভাবে আটক করে। এক মাস জেলে থাকার পর জামিনে বেরিয়ে এসে।

তার ছেলে জেলে থাকা সময় তার ছেলের চাকরি বাঁচানোর নাম করে প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম তার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে না পারলে চাকরি চলে যাবে বলে হুমকি দেন আবদুচ ছালাম।

তখন তিনি বললেন, তিনি খুবই গরীব এত টাকা কোথায় পাবে? পরে তিনি মানুষের কাছ থেকে ধার করে ৫ হাজার টাকা আবদুচ ছালাম কে দেন।

কিন্তু আবদুচ ছালাম তার দাবি অনুযায়ী ২০ হাজার টাকা না পাওয়ায় আনসার ভিডিপির উপজেলা ও জেলা কর্মকর্তাকে অবগত করে তার বেতন ভাতা বন্ধ করে দেয়।

অথচ একই প্লাটুনে বাবা ছেলে তিনজন চাকরি করছে। তার দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে শাকিল উদ্দিন শেখ প্লাটুনে সদস্য পদে থাকলেও সেই চট্টগ্রামে গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরি করে। আর ছোট ছেলে দশম শ্রেণীতে লেখাপড়া করছে। অপ্রাপ্ত বয়স্ক হলেও নিজের ক্ষমতার জোরে তাকেও  হিল ভিপির সদস্য করা হয়েছে। আর এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে আল আমিন দীর্ঘ সময় ধরে মাছের আড়তে চাকরি করে।

অথচ এরা কর্মস্থলে উপস্থিত না থাকলেও প্রতি মাসে তাদের বেতন ভাতা তুলে প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম ভাগ বাটোয়ারা করে নিচ্ছেন। দীর্ঘ সময় ধরে  এ অনিয়ম হয়ে আসলে ও তাদের বিরুদ্ধে কোন আইনী ব্যবস্থা নাই।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, তার ছেলেকে পুলিশ সন্দেহজনকভাবে আটক করেছে। কিন্তু সাজাতো হয়নি। তার পরেও তার ছেলের বিরুদ্ধে কত ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে। কিন্তু আবদুচ সালাম তার ছেলে ও তার আত্মীয়দের ক্ষেত্রে কোন পদক্ষেপ নেয়নি। তার কারণ এলাকার অন্য একজন ছেলের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে তার ছেলের পরিবর্তে সেই ছেলেকে সদস্য করার জন্য প্লাটুন লীডার এ সমস্ত অনিয়ম দুর্নীতি করছেন বলে জুলমত মোড়ল অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে আবদুচ ছালামের নিকট আত্মীয় মো. সেলিম হাওলাদার বলেন, তার ছোট বোনের জামাই আবদুচ ছালাম দুষ্টু প্রকৃতির লোক। সেই এলাকার মসজিদে সভাপতি থাকাকালীন ৩০ হাজার টাকা ও কাফনের কাপড়ের টাকা আত্মসাৎ করে এলাকার মানুষ তাকে শাস্তি দিয়েছিল।

এছাড়াও এলাকার বাসিন্দা মো. বারেক হিল ভিডিপিতে চাকরির জন্য প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম কে ২০ হাজার টাকা দিয়েছিল। দু’বছর ধরে কোন চাকরিতে দিতে পারেনি। পরে মুরব্বীদের মাধ্যমে চাপ সৃষ্টি করে ১৫ হাজার টাকা ফেরত পেয়েছেন। বাকি ৫ হাজার টাকা আজ দেবো কাল দেবো করে ঘুরাচ্ছেন বলে তিনিও অভিযোগ করেন।

মামুন জমাদ্দার নামে আরও একজন হিল ভিডিপির চাকরির জন্য আবদুচ ছালামকে ১০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। চাকরি দেয় নাই এবং টাকাও ফেরত নাই। সপ্তাহ দু’য়েক আগে ঐ এলাকার সালমা নামে এক মহিলার ছেলে আতিক হাসান কে চাকরি দেয়ার নাম করে ২০ হাজার টাকা নিয়েছেন প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম। এখনও টাকা ফেরত দেয়নি তবে এ চলতি মাসে চাকরির ব্যবস্থা করে দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ২৮নং প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক। তাঁর যদি এতো অনিয়ম দুর্নীতি থাকে তাহলে এতদিন কেন তাঁর কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ দেয়া হয়নি।

তিনি আরও বলেন, জুলমত মোড়লের ছেলে আজগর আলী ইয়াবা ব্যবসার অভিযোগে চট্টগ্রামের পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলে তার ব্যাপারে উপজেলা কর্মকর্তা ও জেলা এডজুট্যান্টকে লিখিতভাবে জানান। সেটা কি তার অপরাধ। প্লাটুন লীডার হিসেবে তার প্লাটুনের সদস্য কোথায় গেছে কি করছে সেটা জানানো তার দায়িত্ব।

অভিযুক্ত তিনজন কর্মস্থলে উপস্থিত না থেকে নিয়মিত তাদের বেতন ভাতা কিভাবে পাচ্ছে জানতে চাইলে প্লাটুন লীডার আবদুচ ছালাম বলেন, তাঁরা বাবা ছেলে তিন জন একই প্লাটুনে চাকরি করছেন। তবে তার বড় ছেলে শাকিল উদ্দিন শেখের পরির্বতে তার স্থলে অন্য একজন কে সদস্য করা হয়েছে। ছোট ছেলের বয়স কম হলেও তার লেখাপড়ার খরচ চালানোর জন্য জেলা এডজুট্যান্টের পরার্মশ ও সুপারিশে হিল ভিডিপিতে নিয়োগ দেয়া হয়েছে ।  প্রতিবেদক তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে এ ব্যাপারে তিনি  কিছুই জানেন না এবং তাকে কেউ কিছু বলেননি বলে তিনি জানান।

ঘটনাপ্রবাহ: বরকলে এক প্লাটুন লীডারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + thirteen =

আরও পড়ুন