বাংলাদেশকে ৩২২ রানের টার্গেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের

fec-image

বিশ্বকাপ দুই দলের পঞ্চম ম্যাচে বাংলাদেশকে ৩২২ রানের লক্ষ্য দিয়েছে ক্যারিবিয়ানরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুরুটা দারুণ হলেও শাই হোপের ইনিংস সেরা পারফরম্যান্সের সঙ্গে শিমরন হেটমায়ার ও জেসন হোল্ডার ঝড়ে তিনশ ছাড়িয়েছে উইরা। ৮ উইকেটে ৩২১ রান করেছে তারা।

টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে শুরুতেই বড় উইকেট পাওয়ার উল্লাসে মাতে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে দলের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫০ রান করার পর থেকে ফর্মহীন ক্রিস গেইলকে ফেরান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

১৩ বল খেলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি গেইল। চতুর্থ ওভারের দ্বিতীয় বলে সাইফের শিকার হন তিনি মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ দিয়ে। দলীয় ৬ রানে ক্যারিবিয়ান ওপেনারকে ফিরিয়ে প্রতিপক্ষকে চেপে ধরেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শাই হোপ ও এভিন লুইস সতর্ক হয়ে ব্যাট করতে থাকেন। শুরুর ধাক্কা তারা সামলে নেন একশ ছাড়ানো জুটিতে। ৫৮ বলে ফিফটি করেন লুইস।

অবশেষে তাদের ১১৬ রানের শক্ত ‍জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের তৃতীয় ওভারে লং অফে বদলি ফিল্ডার সাব্বির রহমানকে ক্যাচ দেন লুইস। ৬৭ বলে ৬টি চার ও ২টি ছয়ে ৭০ রান করেন এই ওপেনার। আবারও সাকিব আঘাত করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং লাইনে। নিজের সপ্তম ওভারে নিকোলাস পুরানকে ফিরিয়ে দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন এই বাঁহাতি স্পিনার। লং অনে সৌম্য সরকারকে ক্যাচ দেন উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান। তার ৩০ বলে ২৫ রানের ইনিংসে ছিল দুটি চার ও একটি ছয়।

পুরানের সঙ্গে ৩৭ রানের জুটি গড়ার পথে ৭৫ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন হোপ। সাকিবের কাছে পুরান ফিরে যাওয়ার পর ক্রিজে নেমে দুরন্ত ব্যাট করতে থাকেন শিমরন হেটমায়ার। মাত্র ২৫ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছয়ে হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি। পরের বলেই তিনি মোস্তাফিজুর রহমানের শিকার হন তামিম ইকবালকে ক্যাচ দিয়ে। হোপের সঙ্গে তার ৮৩ রানের জুটিটি মাত্র ৪৩ বলের। ৩ বল পরই আন্দ্রে রাসেলকে মুশফিকের ক্যাচ বানান মোস্তাফিজ।

৪০তম ওভারে মোস্তাফিজের জোড়া আঘাতের পর ক্রিজে নেমে ঝড় তোলেন জেসন হোল্ডার। মাত্র ২২ বলে হোপের সঙ্গে ৩৯ রানের জুটি গড়েন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক। একপ্রান্ত থেকে ঝড় তোলেন তিনি।

শেষ পর্যন্ত হোল্ডারকে থামান সাইফ। ১৫ বলে চারটি চার ও দুটি ছয়ে ৩৩ রান করে লং অফে মাহমুদউল্লাহর ক্যাচ হন উইন্ডিজ অধিনায়ক।

শুরু থেকে দেখেশুনে ব্যাট করে সেঞ্চুরির পথে হাঁটছিলেন হোপ। তাকে আক্ষেপে পোড়ান মোস্তাফিজ। ১২১ বলে ৯৬ রান করে লিটন দাসের ক্যাচ হন তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা হোপ। চারটি চার ও একটি ছয়ে সাজানো ছিল তার ইনিংস সেরা পারফরম্যান্স।

শেষ বলে ১৯ রানে ড্যারেন ব্রাভোকে বোল্ড করেন। তার সঙ্গে সমান ৩টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের পক্ষে সেরা বোলার মোস্তাফিজ।

ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশ, বিশ্বকাপ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 3 =

আরও পড়ুন