বান্দরবানে নিহত সেনা সদস্যের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর

বান্দরবানে পরিত্যক্ত মটরসেল বিষ্ফোরণে নিহত সেনা সদস্য নিপুন চাকমার মরদেহ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রবিবার (১৯ মে) দুপুরে রাঙ্গামাটির সদর উপজেলার কুতুকছড়ি মধ্যম ধর্মঘর এলাকায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ‘গার্ড অব অনার’ জানিয়ে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল রিয়াদ মেহমুদ নিহতের মরদেহ তাঁর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নানিয়ারচর জোন কমান্ডার কর্ণেল লে. মো. কাইয়ুমসহ সেনাবাহিনী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

নিহতের পরিবারের সূত্রে জানা গেছে আজ তাঁর দাহক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

এসময় মরদেহটি বুঝে নেন নিহত সেনা সদস্যের বাবা ক্রিপাধন চাকমা।

নিহত সেনা সদস্য নিপুন কুমিল্লা প্যারা ব্যাটালিয়নের সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

জানা যায়, শুক্রবার (১৭ মে) দুপুরে বান্দরবানের সদর উপজেলার সুয়ালক ইউনিয়নের আমতলীতে (বিএমটিএ) ভারি অস্ত্রের ফায়ারিং রেঞ্জের ভিতরে জঙ্গল পরিষ্কার করতে গিয়ে পরিত্যক্ত শেল (বোমা) বিস্ফোরণে সেনা সদস্য জাহিদুল ইসলামের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। পরে আহতদের মধ্যে নিপন চাকমাকে ঢাকা (সিএমএস) হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়।

অন্যান্য সেনা সদস্যরা আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হেলিকপ্টারযোগে চট্টগ্রামের সিএমএইচে নিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যে তারা মারা যায়।

শনিবার (১৮ মে) বিকেলে তাদের ওই এলাকায় ফায়ারিং হওয়ার কথা ছিল। এ উপলক্ষে তারা ঝোঁপ ও জঙ্গল পরিষ্কার করছিলেন।

প্রসঙ্গত, নিহত নিপন চাকমা ৭ জুলাই ১৯৯৫ সালে রাঙ্গামাটি জেলার সদরে কুতুকছড়ির মধ্যম ধর্মঘর এলাকায় এক বৌদ্ধ পরিবারে জম্ম গ্রহণ করেন। সে ২০১৪ সালের ৯ আগস্ট সৈনিক পদে সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন এবং মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে ৬ আগস্ট ২০১৫ সালের ১৬ ইস্ট বেঙ্গল বর্তমানে এডহক ১৬ প্যারা পদাতিক ব্যাটালিয়ানে যোগদান করে। মৃত্যুকালে তার বয়স ২৩ বছর। তাঁর পিতার নাম কৃপাধন চাকমা এবং মাতা সুরেঙ্গী চাকমা।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: প্রতিরক্ষা, রাঙ্গামাটি, সেনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × three =

আরও পড়ুন