adv 728

বান্দরবানে ভোটার তালিকা হালনাগাদে রোহিঙ্গা নিয়ে উদ্বিগ্ন

fec-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, বান্দরবান:

মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর সতর্ক পাহারার মধ্য দিয়ে বান্দরবানে শুরু হয়েছে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম। বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহের এ কাজ আগামী ২৪ আগস্ট পর্যন্ত চলবে।

এ ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) প্রথম ধাপে বান্দরবান সদর ও রুমা উপজেলায় হালনাগাদ ভোটার কার্যক্রম শুরু হয়। হালনাগাদ কার্যক্রম উপলক্ষে বান্দরবান সদর ও রুমা উপজেলায় তথ্য সংগ্রহের জন্য সুপারভাইজারের কাছে বিশেষ তথ্য ফরম পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী কমিশনের তালিকাভুক্ত ৩২টি এলাকার মধ্যে বান্দরবানের সবকটি উপজেলাই ভোটার হতে বিশেষ কমিটির সুপারিশ নিতে হবে।

এজন্য জেলার ৭টি উপজেলায় স্ব স্ব ইউএনও’দের প্রধান করে বিশেষ কমিটি করা হয়েছে।

কমিটিতে ডিজিএফআই, এনএসআই, বিজিবি, পুলিশ, আনসার এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ ১৫ সদস্য রয়েছে। এরপরও তথ্য গোপণ করে কেউ যদি রোহিঙ্গাদের ভোটার হতে সহায়তা করে তাহলে মামলা এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বান্দরবান জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, হালনাগাদ কার্যক্রম দ্বিতীয় পর্যায়ে আলীকদম উপজেলায় ২-২২ মার্চ, থানচি উপজেলায় ১০-৩০ জুন, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ১১ জুন থেকে ১ জুলাই, লামা উপজেলায় ২০ জুন থেকে ১০ জুলাই এবং নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ২৪ জুন থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত ভোটারদের তথ্য সংগ্রহের কাজ চলবে।

হালনাগাদ কার্যক্রমের বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, ভোটার তালিকা হালনাগাদকে সামনে রেখে মাঠ পর্যায়ে প্রচার ও উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি চলছে। কোন অবস্থাতে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কেউ ভোটার তালিকায় অর্ন্তভুক্ত হতে না পারে সেজন্য বিশেষ কমিটি করা হয়েছে। তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজাবৃন্দ ঠিকমতো তথ্য সংগ্রহ করছেন কিনা তাও তদারকি করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ইতোপূর্বে ২০০৭ ও ২০০৮ সালে বান্দরবানে কৌশলে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ার অভিযোগ রয়েছে। অনেকে দেশের বিভিন্নস্থানে গিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভোটার হয়। যা ২০১০ থেকে ২০১৩ সালে ভোটার তালিকা থেকে বিপুলসংখ্যক রোহিঙ্গার নাম বাদ দেওয়া হয়। যার কারণে সচেতন নাগরিক সমাজ এবারও রোহিঙ্গা ভোটার নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে বান্দরবান সদরে ৬ হাজার ৯শ’ ৩১, রুমায় ১৮ হাজার ৬শ’ ৪৫, আলীকদমে ২৯ হাজার ৮৪, থানচিতে ১৫ হাজার ১শ’ ১৯, রোয়াংছড়িতে ১৮ হাজার ৫শ’ ৭৪, লামা উপজেলা ৬৭ হাজার ২৮ এবং নাইক্ষংছড়ি উপজেলা ৩৭ হাজার ৪শ’ ৯২জন ভোটার বিদ্যমান রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 1 =

আরও পড়ুন