“আরও একবার বেদের মেয়ে আসছেন পর্দায়”

বেদের মেয়ে তিশা

fec-image

 

আশির দশকে বেদের মেয়ে জোসনাকে রুপালি পর্দায় দেখেছেন দর্শক। বেদের মেয়ে রূপী অঞ্জু ঘোষ মন ভরিয়েছিলেন দর্শকদের। সঙ্গে ছিলেন তখনকার সুপারহিট নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। এ জুটির ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ ছবি আয়ের দিক থেকে এখনও রেকর্ড বুকে এক নম্বরে। আরও একবার বেদের মেয়ে আসছেন পর্দায়। তবে বড় পর্দা নয়, ছোট পর্দায়। আর এবার বেদের মেয়ে হয়ে আসছেন এই সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। নাটকের নাম ‘বেদের মেয়ে’।

এক দশকেরও বেশি সময়ের ধরে নাটক ও সিনেমায় সমান তালে অভিনয় করে চলেছেন তিশা। বিভিন্ন চরিত্রে তাকে ছোট ও বড় পর্দায় দেখা গেছে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার তিনি আসছেন বেদের মেয়ে হয়ে। স্বাভাবিকভাবেই চরিত্রটি নিয়ে উচ্ছ্বসিত এই অভিনেত্রী। নাটকে তাকে দেখা যাবে নূপুর চরিত্রে। শাহজাহান সৌরভের রচনায় ‘বেদের মেয়ে’ পরিচালনা করেছেন প্রীতি দত্ত। এখানে তিশার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইয়াশ রোহান। নাটকটি ঈদের ষষ্ঠ দিন রাত ৬টায় এটিএন বাংলায় প্রচারিত হবে।

নাটকের কাহিনিতে দেখা যাবে, নূপুর বেদের মেয়ে। তবে সে বেদে বহরের সঙ্গে থাকে না। নিজের বহর ত্যাগ করে সে এক বুড়ির বাড়িতে আশ্রিতা। গ্রামে গ্রামে ঘুরে ঘুরে বিষ নামায়। একদিন সেই গ্রামের মেম্বারের ছেলে আহসান নৌকা পার হওয়ার সময় নূপুরকে দেখে। তার কথা শুনে প্রেমে পড়ে যায়। তাকে গ্রামে খুঁজতে যায়।  মেম্বারের কানে খবর চলে যায় যে তার ছেলেকে বেদেনীর বাড়ির আসে পাশে দেখা গেছে। ঘরে ফেরার পর আহসানকে খুব করে বকে তার বাবা। কিন্তু আহসানের মন পড়ে থাকে নূপুরের কাছে।

একদিন নূপুর আহসানকে নিজের জীবনের গল্প শোনায়। বহরের বাইরের এক ছেলের সঙ্গে প্রেম করে সে নিজের বেদে বহর ছেড়ে গ্রামের বুড়ির বাড়িতে আশ্রিতা হয়েছে। এসব কথা শুনে আরো মায়া বেড়ে যায় আহসানের। সে প্রেম নিবেদন করে। কিন্তু একবার পোড় খেয়ে ঘর বাঁধতে ভয় হয় নূপুরের। পরে নুপুরের ভাগ্যে নেমে আসে অন্ধকার। তাকে গ্রাম ছেড়ে চলে যেতে বলে মেম্বার। নূপুর আহসানের সঙ্গে দেখা করে গ্রাম ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা বলে। তার সেই যাত্রার সঙ্গী হতে চায় আহসান। এরপর কী হবে, তা দেখা যাবে এটিএনের পর্দায়।

ঘটনাপ্রবাহ: তিশা, বেদের, মেয়ে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 1 =

আরও পড়ুন