মারমাদের প্রাণের উৎসব ‘সাংগ্রাই’ ঘিরে মুখর বান্দরবান


নিজস্ব প্রতিনিধি, বান্দরবান:

১১ সম্প্রদায়ের মধ্যে বান্দরবানে বসবাসরত সংখ্যাগরিষ্ঠ সম্প্রদায় মারমা জনগোষ্ঠি। আর মারমাদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সাংগ্রাইকে ঘিরে বর্তমানে মুখর হয়ে উঠেছে পাহাড়ি জেলা বান্দরবান। ধর্মীয় প্রধান এই উৎসবটি প্রতিবছর এপ্রিলের ১৩ থেকে ১৫ তারিখ পালিত হয়।

সেই লক্ষ্যে জেলায় বসবাসরত মারমা সম্প্রদায়ের মারমা পল্লীগুলো সাজানো হচ্ছে নতুন সাজে। যাদের মাটির ঘর আছে তারা নতুন করে মাটির প্রলেপ দেওয়া, মাচাং আর ছনের ঘরগুলোতে নতুন ছন লাগানো এবং জুমের চাউল দিয়ে নানা রকমের পিঠার তৈরিসহ নানা আয়োজনের জন্য ব্যস্ত সময় পার করছেন মারমারা।

পুরাতন বছরকে বিদায় এবং নতুন বছরকে বরণ করে নেয়ার লক্ষ্যে যে উৎসব পালিত হয় তাকে তারা সাংগ্রাই পোয়ে বলে। এই উৎসব আয়োজনে থাকছে বর্ণাঢ্য র‌্যালি, বুদ্ধ মুর্তি স্নান, হাজার বাতি প্রজ্জ্বলন, ধর্মীয় উপাসনা, নানা ধরনের বিনোদনমূলক খেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও অন্যতম আকর্ষণ মৈত্রী পানি বর্ষণ যা মার্মা ভাষায় বলা হয় ‘ডি লং পোয়ে’।

শুভাকাঙ্খার আশায় অতীতের সকল জরা-গ্লানী, দুঃখ কষ্ট মুছে দিতে একে অপরের গায়ে মৈত্রীময় পানি ছিটিয়ে একদিকে নতুন বছরকে বরন অন্যদিকে নিজেদেরকে পবিত্র করা যায় বলে মনে করেন মারমা সমাজ।

সাংগ্রাই উৎসব উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক কোকোচিং মারমা জানান- প্রতিবছরের ন্যায় এবারও সাংগ্রাই উৎসব’কে ঘিরে ৪ দিনের অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। ১৩ এপ্রিল সকালে পুরাতন রাজবাড়ি মাঠ থেকে সাংগ্রাই শোভাযাত্রার মাধ্যমে উৎসব শুরু হবে।

উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি হ্লাএমং মারমা জানান- সাংগ্রাই উৎসব শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে। সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে এই উৎসব সম্পন্ন করার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − 2 =

আরও পড়ুন