রাঙামাটিতে আরাকান আর্মি অভিযুক্ত ২আসামির এক মামলায় অব্যাহতি

Rangamati Armi kriminal Arest pic 1

স্টফ রিপোর্টার:

রাজস্থলীতে আটক মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সদস্য হিসেবে অভিযুক্ত দু’আসামিকে এক মামলায় অব্যাহতি দিয়েছে রাঙামাটি আদালত। আসামিরা হলেন, মং সু অং মারমা (৩৯) ও জো সো অং মারমা (৪২)।

বুধবার বেলা ১২টায় রাঙামাটির অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাবরিনা আলীর আদালতে আসামিদের হাজির করা হলে আদালত অবৈধ অনুপ্রবেশ ও বিদেশি নাগরিক সম্পর্কিত আইনের মামলা থেকে তাদের অব্যাহতি দেন। তবে তাদের বিরুদ্ধে বিদেশি মূদ্রা পাচার ও সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা থাকার কারণে আসামিদের আবারও কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

রাঙামাটি আদালতের পুলিশ পরিদর্শক মোমিনুল ইসলাম জানান, বুধবার বেলা ১২টায় রাঙামাটির অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাবরিনা আলীর আদালতে মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির নেতা ডা. রেনিন সোয়ে মারমা তাঁর সহযোগী অং ইউ ইয়াং রাখাইন ও দু’কর্মচারী মং সু অং মারমা ও জো সো অং মারমাকে রাঙামাটির অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাবরিনা আলীর আদালতে হাজির করা হয়।

এ সময় আসামিদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সন্ত্রাস দমন, বিশেষ ক্ষমতা আইন ও বিদেশি নাগরিক সম্পর্কিত আইনের মামলায় রাঙামাটির ৮জন আইনজীবী আসামি পক্ষে জামিন আবেদন করেন। কিন্তু রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আসামিদের জামিন আবেদন বিরোধীতা করা হলে আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযোগপত্র গ্রহণ করে। শুধুমাত্র বিদেশি নাগরিক সম্পর্কিত আইনের মামলা থেকে দুই কর্মচারীকে অব্যাহতি দেন। তবে আরও দু’মামলার আবেদন জামিন নামঞ্জুর করে তাদের আবারও রাঙামাটি কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন। এ সময় আসামী ডা. লেলিন ও অং ইউ ইয়াং জামিনও নামঞ্জুর করা হয়। আদালত আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী তারিখ ধায্য করেন।

এর আগে পরে কড়া পুলিশ নিরাপত্তায় আসামিদের রাঙামাটি কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৫সালে ২৭ আগস্ট রাঙামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলায় গাইন্দ্যা ইউনিয়নের তাইতংপাড়া কলেজগেট এলাকায় স্থানী ডা. রেনেই জু মারমা বাড়ি থেকে অভিযান চালিয়ে দু’হাতের কর্জি ছাড়া মিয়ানমারের নাগরিক ও বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সহযোগী অং ইউ ইয়াং রাখাইনকে আটক করে যৌথবাহিনীর দল। পর ২৮ আগষ্ট ওই গ্রুপের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে রাজস্থলীর গাইন্দ্যা ইউনিয়নের মুগ্ধপাড়া পূনর্বাসন এলাকা থেকে রহস্যময় সুরম্য বাড়িটির কর্মচারী চ সুই অং মারমা ও মংস ওয়াং মারমাকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় রাজস্থলী থানায় তাদের বিরুদ্ধে পৃথক ৩টি মামলা করে রাজস্থলী উপজেলা থানা পুলিশ। প্রথম বৈধ অনুপ্রবেশ ও বিদেশি নাগরিক আইনের মামলা ও সন্ত্রাস দমন আইনে মামলায় ও বিদেশি মূদ্রা পাচার মামলা করা হয়। সে সময় তাদের রিমান্ডেও নেয় পুলিশ। তাঁদের আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে বেরিয়ে আসে ডা. রেনিনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন তথ্য। এ ঘটনার পর আটক করা হয় ডা. রেনিনকে। তার বিরুদ্ধে রাঙামাটি রাজস্থলী থানায় দায়ের করা হয় পৃথক ৩টি মামলা।

ঘটনাপ্রবাহ: আরাকান আর্মি, আসামির, মামলায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen − eight =

আরও পড়ুন