“লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার কথা বলে অভিভাবকদের বারবার বিয়ে না দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন”

রাঙ্গামাটিতে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্য বিবাহ: আটক ৩

রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্য বিবাহ। এ সময় বরসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার (১৩ মে) রাতে শহরের রির্জাভ বাজারস্থ ২নং পাথর ঘাটায় এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রগুলো জানিয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রগুলো জানিয়েছে, রাঙ্গামাটি শহরের রিজার্ভবাজারের এক ব্যক্তির মেয়ের সাথে বনরুপা আব্দুল আলীর ছেলে দ্বীন ইসলামের সাথে বিয়ের দিন তারিখ ঠিক করা হয়। ঐ কিশোরী শহরের মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। সে লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার কথা বলে অভিভাবকদের বারবার বিয়ে না দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। কিন্তু তার কোন কথা শুনতে রাজি হননি কিশোরীর অভিভাবক।

ঐ কিশোরীর মা ও মামা বরপক্ষের সাথে কথা বলে সব কিছু ঠিক করে নেন। সোমবার রাতেই বিয়ের সব আয়োজন করা হয়। এমন সময়ই কনের বাড়িতে পুলিশ নিয়ে হাজির হলেন রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জোনায়েদ কবির সোহাগ। ফলে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রেহাই মিলে ঐ কিশোরীর।

এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাল্য বিবাহ হচ্ছে এমন তথ্য পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছেন ইউএনও। এখনও মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়ায় বর এবং কনের পক্ষের অভিভাবকদের সাথে কথা বলে এ বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন তিনি। এসময় মেয়ের মামা, বর দ্বীন ইসলাম ও বরের বাবা আব্দুল আলীকে আটক করা হয়।

ঘটনাপ্রবাহ: আটক, বাল্যবিবাহ, রাঙামাটিতে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 + 17 =

আরও পড়ুন