“বর্বরোচিত নির্যাতন দেখে ভয়ে তার শিশু সন্তানরাও আত্মচিৎকার শুরু করে। ”

রামগড়ে স্বামী, শাশুড়ি, দেবরের নির্যাতনে আহত গৃহবধূ হাসপাতালে

fec-image

খাগড়াছড়ির রামগড়ে স্বামী, শাশুড়ি ও দেবরের বর্বরোচিত নির্যাতনে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এক গৃহবধূ। রাহেনা আক্তার(২৭) নামে নির্যাতিতা গৃহবধূ হাসপাতালের বেডে যন্ত্রনায় ছটপট করছেন।

শনিবার রাত সাড়ে ৯ টায় হাসপাতালের বেডে চিকিৎসাধীন রাহেনা অভিযোগ করে বলেন, আজ(১৫ জুন) দুপুরে উপজেলার মধ্যম লামকুপাড়া গ্রামে ঘরের দরজা বন্ধ করে স্বামী আরিফ হোসেন, দেবর আজাদ ও শাশুড়ি ফোরকান আক্তার তিনজনে মিলে অমানুষিক নির্যাতন চালায় তার ওপর। কাঠের টুকরা দিয়ে তার সমস্ত শরীরে এলোপাথারি আঘাত করে তারা। এক পর্যায়ে স্বামী তার বুকের ওপর বসে গলা চিপে ধরে। বুক, পিঠ, হাত, পা, উরোসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান শক্ত বস্তুর আঘাতে ফুলে কালো দাগ হয়ে গেছে।

ওই গৃহবধূ আরো জানান, বর্বরোচিত নির্যাতন দেখে ভয়ে তার শিশু সন্তানরাও আত্মচিৎকার শুরু করে। প্রতিবেশীরা উপজেলা মহিলা ভাইস চেযারম্যানসহ সমাজপতিদের ঘটনাটি জানালে তারা এসে ঘর থেকে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান।

ফটিকছড়ির বাগানবাজারের দরিদ্র চা বিক্রেতা শফিকুর রহমানের কন্যা রাহেনা আক্তারের বিয়ে হয় রামগড় উপজেলার মধ্যম লামকুপাড়া গ্রামের আমিন খানের ছেলে আরিফ হোসেনের সাথে। ১৪ বছরের দাম্পত্যজীবনে তাদের ঘরে আসে দুই ছেলে, এক মেয়ে। স্বামী আরিফ পেশায ফার্ণিচার দোকানদার। বিযের পর নানা অজুহাতে যৌতুক দাবি করলে এ পর্যন্ত দরিদ্র পিতা প্রায তিন লক্ষ টাকা দেয় জামাই আরিফকে। কিছুদিন আগে স্থানীয় এক মহিলার সাথে অবৈধ কাজে লিপ্ত অবস্থায হাতেনাতে ধরে গ্রামবাসিরা।

গ্রাম্য সালিসে তাকে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয। এখন এই ৮০ হাজার টাকা বাবার কাছ থেকে এনে দেয়ার জন্য আরিফ তার ওপর অবিরাম নির্যাতন চালিযে যাচ্ছে। এত টাকা দিতে পিতার অক্ষমতা জানালেও সে কিছুই শুনতে রাজি না। টাকা না আনলে এভাবে নির্যাতন সইতে হবে, নচেৎ বাপের বাড়ি চলে যেতে হবে বলে আরিফ সোজা জানিয়ে দেয়। তার ওপর অবিরাম নির্যাতনের ব্যাপারে এই পর্যন্ত অসংখ্যবার বিচার সালিস হলেও সে কাউকে তোয়াক্কা করে না।

উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা বেগম ঘটনার সত্যত্যা স্বীকার করে বলেন, ওই গৃহবধূর ওপর প্রতি নিয়তই নির্যাতন চালায় স্বামী। শনিবারও অমানুষিকভাবে নির্যাতন চালিয়ে গুরুতর আহত করা হয় তাকে। প্রতিবেশীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে সমাজপতিদের সাথে নিয়ে স্বামীর ঘর থেকে আহত আবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয।

স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগের ব্যাপারে বক্তব্যের জন্য আরিফ হোসেনের মোবাইল ফোনে কল করে সংযোগ পাওয়া যাযনি।

এ ব্যাপারে রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) তারেক মো. আব্দুল হান্নান বলেন, খবর পেয়ে থানার এক অফিসার হাসপাতালে গিয়ে ওই গৃহবধূকে দেখে এসেছেন এবং ঘটনা শুনেছেন। তিনি বলেন নির্যাতিতার পিতাকে মামলা দায়ের করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আসামি গ্রেফতারসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আহত গৃহবধূ রাহেনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + 17 =

আরও পড়ুন