“ফেনী নদীর উপর নির্মানাধীন মৈত্রী সেতুটি হবে দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কের বন্ধন।”

রামগড় সাব্রুম স্থলবন্দর দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার করবে

রামগড় সাব্রুম স্থলবন্দরের স্থান ও মৈত্রী সেতু পরিদর্শন করছেন চট্টগ্রামের বিভাগীয কমিশনার

 

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আব্দুল মান্নান বলেছেন, রামগড় সাব্রুম স্থলবন্দর বাংলাদেশ ভারত দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ককে আরও জোরদার করবে। ফেনী নদীর উপর নির্মানাধীন মৈত্রী সেতুটি হবে দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কের বন্ধন।

শুক্ররার(১৬ মে) রামগড় সাব্রুম স্থলবন্দর ও ফেনী নদীর উপর নির্মণাধীন ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু- এক এর কাজ পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা বলেন।

বর্তমান সরকার দেশের বন্দরগুলোর উন্নয়নে কাজ করছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় রামগড় স্থলবন্দরের উন্নয়নেও সরকার ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। শীঘ্রই রামগড় স্থলবন্দরের অবকাঠামোর কাজ শুরু হবে।

অপ্রয়োজনে কোন জমি অধিগ্রহণ করা হবেনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, স্থানীয়দের যাতে ক্ষতি না হয় বিষয়টি দেখতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ রয়েছে।

মৈত্রী সেতুর নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকালে ভারতীয় সেতু কর্তৃপক্ষের টিম লিডার রাম নন্দন কুমার কাজের অগ্রগতি বিষয়ে তাঁকে অবহিত করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) চাহেল তস্তরী, রামগড়স্থ ৪৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর হুমায়ুন কবীর, খাগড়াছড়ি সওজ”র নির্বাহি প্রকৌশলী শাকিল মো. ফয়সাল, রামগড় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কার্বারী, রামগড় উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ইসরাত, মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভীষণ কান্তি দাশ, রামগড় সার্কেল’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. ফরহাদ, উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী সবুজ চাকমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + six =

আরও পড়ুন