adv 728

রুমার গালেঙ্গ্যায় জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল করতে হয়রানীর স্বীকার ৩ যুবক

fec-image

বান্দরবানের রুমায় গালেঙ্গ্যা ইউনিয়নের জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি সংগ্রহ করতে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গিয়ে গালাগাল খেয়ে খালি হাতে ফিরে আসতে হয় সাধারণ লোকের।

এরই মধ্যে একবার ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তার মাধ্যমে ইন্টারনেট থেকে জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি হাতে পেয়ে যায়। এ কাগজে স্বাক্ষর নিতে গেলে তা টুকরো টুকরো করে ছিঁড়ে ফেলে দেন ইউপি চেয়ারম্যান। এঅবস্থায় জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি না পাওয়ায় নতুন ভোটার তালিকাভুক্ত হতে পারছে না তিন যুবক।

সোমবার (৬ মে) দুপুরে রুমা বাজার সংলগ্ন অস্থায়ী বাস স্ট্যান্ডের পাশে একটি ছোট্ট মুদি দোকানে কথা হয় এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় তিন যুবকের।

তাদের বয়স ১৬ না হয় ১৮। এ তিনজনই গালেঙ্গ্যা ইউনিয়নের পান্তলা পাড়ার বাসিন্দা। দুই জনের পিঠে ব্যাগ, আরেক জনের হাতে প্লাস্টিক মোড়ানো কিছু কাগজ। তার মধ্যে একজন আংশিক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী

আলাপচারিতার এক পর্যায়ে পুরানো জন্মনিবন্ধন কপি দেখিয়ে তারা এ প্রতিবেদকে জানায়, এখনো জাতীয় আইডি কার্ড ও ভোটার তালিকা আমাদের হয়নি। চলমান ভোটার হালনাগাদ এ নতুন ভোটার তালিকাভুক্ত করতে জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি দরকার হয়।

তাই ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি সংগ্রহ করতে আসছেন বলে জানায় চশৈপ্রু মারমা। সে গত বছর এসএসসি পাস করেছে। তার জন্মগত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। অন্য দুইজনের নাম- মংচপ্রু মারমা (১৬) ও উমংপ্রু মারমা (১৭)। দুই জনেই জুম চাষী।

চশেপ্রু জানায় ২৯ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত মোট চারবার ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গেছেন। কিন্তু জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি পাওয়া তো দূরের কথা, শুধু অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে তাড়িয়ে দেন ইউপি চেয়ারম্যান শৈউ সাই মারমা। অন্যরা সবাই জন্ম নিবন্ধন পায়। আর আমরা জন্ম নিবন্ধন চাইতে গেলে গালি খাই। আমাদের দোষ কোখায়? তারা পাল্টা জানতে চাইলেন এ প্রতিবেদকের কাছে।

গালিগালাজ করে কেন জন্মনিবন্ধন দিচ্ছে না, এর কারণ জানতে চাইলে তাদের ভাষ্য, আমাদের অভিভাবকেরা নাকি, তাকে (চেয়ারম্যান) নির্বাচনে ভোট দেন নি। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থাকে সব সময়। তাকে বদনাম করার অজুহাত দেখায়। এসব কথাবার্তা তুলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে আমাদের ফিরিয়ে দেন ইউপি চেয়ারম্যান শৈউ সাই মারমা

উচমং জানায়, ভোটার তালিকাভূক্ত এ মহুর্তে আমার জন্মনিবন্ধন ডিজিটাল প্রিন্ট কপি খুব জরুরি। এখন জন্মনিবন্ধন কিভাবে, কোথায় থেকে পাবো, তা বুঝতে পারছি না।         এব্যাপারে  মুঠোফোনে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান শৈউসাই মারমা বলেন, তিন কিশোরকে জন্মনিবন্ধন না দেয়ার অভিযোগটি সত্য নয়। এটা ইন্টারনের সমস্যার কারণে প্রিন্ট করা এখনো সম্ভব হয়নি। তবে তাদের অভিভাবকদের সাথে নিয়ে আসতে বলেছি। কারণ তাদের অভিভাবকরা দল বেঁধে মুরগি মেরে শপথ আয়োজন করেছিলো যে, আমাকে (শৈউসাই চেয়ারম্যানকে) কখনো ভোট দেবে না। এতে আমার রাগ নেই। তবে কেন তারা ভোট না দিতে শপথ করলো, তা জানার জন্য অভিভাবকদের আসতে বলা। অভিভাবকরা যদি আসেন, কথা বলে আমার যদি কিছু দোষ থাকে, প্রয়োজনে তাদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেবে।

তবে গালেঙ্গ্যা ইউপি সচিব উবানু মারমা বলেন, স্বাক্ষর না দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সনদ ছিঁড়ে ফেলার কখা শুনেছি। তবে চেয়ারম্যান কাজটা ঠিক করেন নি। এটা জনস্বার্থ বিরোধী বলে মনে করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ শামসুল আলম বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে শোনার পর গালেঙ্গ্যা ইউপি চেয়ারম্যানকে যা বলার বলে দিয়েছি। এতে কাজ না হলে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান ইউএনও শামসুল আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − one =

আরও পড়ুন