রোহিঙ্গাদের অবশ্যই মিয়ানমারকে ফিরিয়ে নিতে হবে :মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

fec-image

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আশিয়ানভুক্ত দেশগুলো খুবই উদ্বিগ্ন। বাংলাদেশের উখিয়া-টেকনাফে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবশ্যই মিয়ানমারকে ফিরিয়ে নিতে হবে। তবে তাদের প্রত্যাবাসন হতে হবে অবশ্যই নিরাপদ এবং স্বেচ্ছামুলক। রাখাইনে তাদেরকে স্বাধীনভাবে চলাচলের সুযোগ দিতে হবে।

রোববার (৭ জুলাই) দুপুর আড়াইটার দিকে বেশ কয়েকটি রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে উখিয়ার জামতলী ক্যাম্পে এসব কথা বলেন মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফ উদ্দিন আব্দুল্লাহ।

তিনি বলেন, ‘ রোহিঙ্গাদের নাগরিত্ব ও মানবাধিকার নিশ্চিত করতে হবে। এ ব্যাপারে আশিয়ানভুক্ত দেশ সমূহ মিয়ানমারের সাথে কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মালয়েশিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা, জাতিগত নিধনসহ রোহিঙ্গা মুসলমানরা ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হয়েছে। যে কারণে ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পার হয়ে বাংলাদেশের এই কক্সবাজার অঞ্চলে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। শুধু তাই নয়, একই কারণে মিয়ানমারের রাখাইনেও দেড় লাখ রোহিঙ্গা বাস্তুচ্যুত হয়ে নিজ দেশেই ক্যাম্প জীবন-যাপন করছে।

উল্লেখ্য যে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের আমন্ত্রণে শনিবার (৬ জুলাই) তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসেন মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর রোববার সকালে আকাশপথে কক্সবাজারে পৌঁছান তিনি। সেখান থেকে সড়কপথে প্রথমে মালয়েশিয়ার ফিল্ড হসপিটাল যান, তারপর উখিয়ার বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। বিকেল ৩টার দিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশ্যে ক্যাম্প ত্যাগ করেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী, মিয়ানমার, রোহিঙ্গা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন