adv 728
“নিউজিল্যান্ডের ঘটনার সময় সামাজিক মাধ্যম বন্ধ না করা হলেও হামলার ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ার পেছনে সামাজিক মাধ্যমগুলোকেই দায়ী করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। ”
ফেসবুক, ভাইবার, ওয়াটসএপ

বোমা হামলার পর বেশ কয়েকটি সামাজিক মাধ্যম কেন বন্ধ করা হলো?

সামাজিক মাধ্যম বন্ধ করা কি ভাল উদ্যোগ

ভুয়া খবর’ ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে ফেসবুক, ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ আর ইনস্টাগ্রাম, এবং ইউটিউব, ভাইবার ও স্ন্যাপচ্যাট বন্ধ করে দেয়া হয়।  নিষেধাজ্ঞা স্বত্বেও অনেকেই ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) ব্যবহার করে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করছেন।

ভিপিএন’এর মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারীর ঠিকানা শেখ হাসিনা গোপন করে অন্য দেশের সার্ভারের মাধ্যমে ওয়েবসাইট ব্যবহার করা যায়।

ভুয়া খবর নিয়ে গবেষণা করা অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘ফার্স্ট ড্রাফ্ট’ এর প্রতিষ্ঠাতা ক্লেয়ার ওয়ার্ডল বিবিসিকে বলেন: “এরকম একটি ঘটনার পর এই ধরণের পদক্ষেপ নেয়ার কারণ সহজে অনুধাবন করা যায়।”

“কিন্তু যখন মানসম্পন্ন তথ্যের অন্য কোনো নির্ভরশীল এবং বিশ্বাসযোগ্য সূত্র থাকে না, তখন এমন সিদ্ধান্তে হিতে বিপরীত হতে পারে। কারণ একে অন্যের সাথে যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে অনেক সময়ই সামাজিক মাধ্যমের আর কোনো বিকল্প থাকে না।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন