“এলাকাবাসী ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন মিলে ইতিমধ্যে প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা সংগ্রহ হয়েছে। ”

সন্তানকে বাঁচাতে পানছড়ির এক দিনমজুর পিতার আকুতি

fec-image

দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা করে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকা খরচ করেও শিশু মীমকে সুস্থ করে তুলতে পারেননি দিনমজুর পিতা আবুল কালাম। গত ২৭ এপ্রিল থেকে ২মে পর্যন্ত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল মোত্তালিব সিটি স্ক্যান ও এমআরআই করে জানতে পারে সে ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত।

ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে যার চিকিৎসা করাতে প্রয়োজন প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকা। মীম পানছড়ি উপজেলার পাইলট ফার্ম গ্রামের দিনমজুর আবুল কালামের মেয়ে। তার বয়স আট। সে পানছড়ি বাজারস্থ ইসলামিক একাডেমির হাদিস শরীফ শাখার শিক্ষার্থী।

অর্থাভাবে অসচ্ছল এই পরিবারের পক্ষে ঢাকা নিয়ে অপারেশন করানো সম্ভব হচ্ছেনা। এরি মাঝে সে ডান চোখেও ভালোভাবে দেখতে পারছেনা। এলাকাবাসী ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন মিলে ইতিমধ্যে প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা সংগ্রহ হয়েছে। আনুষাঙ্গিকসহ এখনও প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। এই মুহুর্তে এতো টাকা সংগ্রহ করা দিনমজুর বাবার পক্ষে অসম্ভব। মেয়েকে বাঁচাতে মীমের বাবা বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন। ০১৮৭৮৭৪৭৮২৮ (পারসোনাল) মীমের বাবা আবুল কালাম।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আমিরুল বশর জানান, মেয়েটি খুবই দরিদ্র পরিবারের। তার বাবা দিনমজুরী না করলে চুলোয় আগুন জ্বলেনা। আমরা সাধ্যমত সহযোগিতা করেছি। সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

৩নং পানছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো. নাজির হোসেন বলেন, মীমের চিকিৎসায় সহযোগিতা করেছি। উন্নতর চিকিৎসার সময় আরো সহযোগিতা দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 4 =

আরও পড়ুন