সাংবাদিক সাগর-রুনি হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে খাগড়াছড়িতে সাংবাদিক ইউনিয়নের মানববন্ধন

SAMSUNG CAMERA PICTURES

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার ৪৮ ঘণ্টার প্রতিশ্রুতি পূরণ হয়নি ৪৮ মাসেও। এই হত্যার প্রকৃত রহস্য উন্মোচন ও বিচারের দাবিতে মৌন মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দরা। বৃহস্পতিবার সকালে জেলা শহরের শাপলা চত্বর মোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দসহ জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায়ার সাংবাদিকবৃন্দ, সামাজিক, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও জাবারাং কল্যান সমিতিসহ বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধন কর্মসূচীর আগে পৌর টাউন হল প্রাঙ্গণ থেকে একটি মৌন মিছিল বের করা হয়।

উল্লেখ্য, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন ও ঘাতকদের গ্রেফতার করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন। ৪৮ মাস পেরিয়ে গেছে, তবু সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচিত হয়নি। অনেকটা থমকে আছে এ মামলার তদন্ত। থানা পুলিশ থেকে ডিবি হয়ে বর্তমানে মামলাটি তদন্ত করছে র‌্যাব। একাধিকবার বদল করা হয়েছে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। সুদূর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রতেও আলামত পাঠিয়ে ডিএনএ পরীক্ষা করানো হয়েছে। মামলার তদন্ত সংস্থার কাছে সেই পরীক্ষার প্রতিবেদনও এসেছে। কিন্তু ফলাফল শূন্য।

২০১২ সালের ১১ই ফেব্রুয়ারি ভোরে পশ্চিম রাজাবাজারের ভাড়া ফ্ল্যাট থেকে সাংবাদিক দম্পতি সাগর সারওয়ার ও মেহেরুন রুনির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় রুনির ভাই নওশের আলম রোমান বাদী হয়ে শেরেবাংলা নগর থানায় একটি হত্যা মামলা করেছিলেন। প্রথমে মামলাটি তদন্ত করে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ। চার দিনের মাথায় মামলাটি হস্তান্তর করা হয়েছিল মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির কাছে। তদন্তের ৬২ দিনের মাথায় উচ্চাদালতে ব্যর্থতা স্বীকার করে ডিবি। পরে উচ্চ আদালতের নির্দেশে ২০১২ সালের ১৮ই এপ্রিল মামলাটি র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হয়। হত্যাকান্ডের ৭৬ দিনের মাথায় ওই বছরের ২৬শে এপ্রিল পুন:ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে উত্তোলন করা হয় সাগর-রুনির লাশ। লাশের ভিসেরা আলামতসহ আরও কিছু নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

ঘটনার দিন থেকেই শুধুই আশ্বাস আর প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের কাছ থেকে। তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন দিয়েছিলেন ৪৮ ঘণ্টার প্রতিশ্রুতি। এর মধ্যেই খুনিদের গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই ৪৮ ঘণ্টা পেরিয়ে ৪৮ মাসে গিয়ে ঠেকেছে, তবুও প্রণিধানযোগ্য অগ্রগতির কোনো দেখা পাওয়া যায়নি।

ঘটনাপ্রবাহ: মানববন্ধন, সাগর-রুনি, সাংবাদিক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × five =

আরও পড়ুন