অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও সম্প্রীতির বন্ধনে প্রতিচ্ছবিতে মূখরিত মানিকছড়ির পূজামন্ডপ

fec-image

অসাম্প্রদায়িক চেতনার মধ্য দিয়ে উদযাপিত শারদীয় দুর্গোৎসবে পূজারী ও দর্শণার্থীদের পদভারে মূখরিত মানিকছড়ির তিনটি পূজামন্ডপ। নবমীতে মন্ডপে মন্ডপে বিহিত পূজার আরাধনায় মগ্ন ছিলেন ভক্তরা। প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিরা পূজা উদযাপনে পাশে থেকে সম্প্রীতির নজির রেখেছেন। মংরাজ পরিবারের আবাসস্থল উপজেলার প্রাচীন রাজশ্যামা কালি মন্দির পূজার অর্ধশত বছর পার করেছে সম্প্রীতির বন্ধনে।

এছাড়া তিনটহরী ও একসত্যাপাড়ার দূর্গা মন্দিরেও সাধ্যানুযায়ী আয়োজনে শারদীয় দূর্গোৎসব মনোমুগ্ধকর পরিবেশে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় মহাষষ্ঠী থেকে মহানবমীতে প্রতিটি মন্ডপেই পূজারী ও দর্শণার্থীদের পদচারনা ছিল লক্ষনীয়। আরাধনার পাশাপাশি হতদরিদ্রের মাঝে বস্ত্র দান, নাটিকা মঞ্চায়ন সবই ছিল এবারের দুর্গোৎসবে। মহানবমীতে তিনটহরী ও একসত্যাপাড়া মন্ডপে গিয়ে দেখে সনাতনী সম্প্রদায়ের লোকজনের চেয়ে বেশি উপস্থিতি অন্যান্য ধর্মালম্বীদের।

এ যেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার বহিঃপ্রকাশ। একসত্যাপাড়া মন্দির কমিটির সভাপতি নারায়ণ কান্তি নাথ বলেন, আমরা ৬ বছর ধরে গ্রামের প্রত্যন্ত ও মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ট এ সমাজে সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপন করছি। দূর্গোৎসব সকলের কাছে সম্প্রীতির বন্ধনে পরিনত হয়েছে। তিনটহরী পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি রাজীব দে বলেন, আমরা দূর্গোৎসব এলে যেন সকলে চিরবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে মা দূর্গার আরাধনা, ভক্তিতে সামিল হই।

রাজশ্যামা কালি মন্দির পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ডা. অমর কান্তি দত্ত বলেন, উপজেলার প্রাণকেন্দ্র ও বাজার কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন মন্দিরে আনন্দগণ পরিবেশে পূজা উদযাপনে প্রমাণ করে আমরা সম্প্রীতির বন্ধনে একাকার। সনাতন সমাজ কল্যাণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সজল বরণ সেন আজকের পত্রিকাকে বলেন, এখানকার হিন্দু মুসলিম, বৌদ্ধ সকলে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী বলেই আজ সনাতনী দুর্গোৎসবে সকলে মিলেমিশে বাঙ্গালীর মহোৎসব মিলন মেলায় পরিনত হয়। আমরা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ও সহযোগিতার জন্য সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ।

নবমীতে উপজেলার তিনটি পূজা মন্ডপে আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ জয়নাল আবেদীন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাঈন উদ্দীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বাবুল, ইউপি চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান ফারুক, মো. আবুল কালাম আজাদ, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান, সদস্য মো. রবিউল হোসেন, যুবলীগ সভাপতি মোঃ সামায়উন ফরাজী সামু, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আসাদুল ইসলাম, ছাত্রলীগ সভাপতি মো. জামাল হোসেনসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটির নেতাকর্মীরা বহর নিয়ে মন্ডপ পরিদর্শন করেন। এ সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সম্পাদক মন্ডপে অনুদান প্রদান করে অসাম্প্রদায়িক দূর্গোৎসবে সম্প্রীতির বন্ধনে উদাহরণ সৃষ্টি করেন।

এছাড়া দুপুরে সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়কের পক্ষে মন্দিরে অনুদান প্রদান করেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা। সন্ধ্যার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তামান্না মাহমুদ ও থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহনূর আলম মন্ডপ পরিদর্শন করে খোঁজ-খবর নেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven + two =

আরও পড়ুন