খাগড়াছড়িতে উপজাতীয় যুবকদের গণধর্ষণে ত্রিপুরা কিশোরীর মৃত্যু

আদালতে ৩ যুবকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, জেল হাজতে প্রেরণ

fec-image

খাগড়াছড়িতে উপজাতীয় যুবকদের গণধর্ষণে ধনিতা ত্রিপুরা (১৭) নামে এক কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ৩ যুবক আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

বুধবার (১৫ মে) দুপুরে খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রোকেয়া আক্তারের আদালতে কম্বল ত্রিপুরা (১৯), রুমেন ত্রিপুরা (২২) ও কিরণ ত্রিপুরা (২০) এ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

আদালত বিরতীহীনভাবে দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ৫ ঘন্টা ধর্ষকদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আসামীদের জেলা হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এর আগে গত সোমবার (১৩ মে) দিবাগত রাতে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ভাইবোন ছড়ার বড় পাড়া গ্রামে মা-বাবার অনুপস্থিতির সুযোগে তিন যুবকের গণধর্ষণে ধনিতা ত্রিপুরার মৃত্যু হয়। পরের দিন দুপুরে পুলিশ ঐ কিশোরীর লাশ উদ্বার করে। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ৩ ধর্ষককে পুলিশ গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় কিশোরী মা স্বরলেখা ত্রিপুরা বাদি হয়ে মামলা করেন।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদাত হোসেন টিটো জানান, কিশোরী ধনিতা ত্রিপুরাকে বাসায় একা রেখে নল মোহন ত্রিপুরা ও স্বরলেখা ত্রিপুরা গত সোমবার (১৩ মে) জুম চাষের জন্য দীঘিনালা যায়। সে সুযোগে ঐ দিন রাত সাড়ে ৮টায় তিন যুবক মদ্যপ অবস্থায় বাসায় যায় এবং ধর্ষক কমল ত্রিপুরা কিশোরীর মা স্বরলেখা ত্রিপুরাকে ফোন করে মেয়েকে তার কাছে বিয়ে দেওয়ার জন্য চাপ দেয়। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ফোন কেটে দেয় এবং রাত ১২টার দিকে ৩ যুবক একে একে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে কিশোরী মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়।

মঙ্গলবার (১৪ মে) সকাল ৯টার দিকে প্রতিবেশীরা খোঁজ নিতে গিয়ে ধনিতা ত্রিপুরার লাশ বিছানার উপর পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়।

স্বরলেখা ত্রিপুরা জানান, দীর্ঘ দিন থেকে এলাকার কিছু বখাটে কম্বল ত্রিপুরার সাথে তার কিশোরী মেয়ে ধনিতা ত্রিপুরার বিয়ে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়ে আসছিল।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: খাগড়াছড়ি, গণধর্ষণ, নিহত
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine + 2 =

আরও পড়ুন