আলীকদমে ৪৫ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকার ২৪ প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন পার্বত্যমন্ত্রী

fec-image

পার্বত্যমন্ত্রী বলেছেন, পাহাড়ের মানুষ তথা তৃণমূলের মানুষের উন্নতির কথা সবসময় ভাবেন প্রধানমন্ত্রী। একারণে পাহাড়ে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ত্বরান্বিত করা হচ্ছে। পাহাড়ের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন ও শহরের মানুষের মতো সমান সুযোগের জন্য সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছে। বৃহস্পতিবার (৯সেপ্টেম্বর) জেলার আলীকদমে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি ও কৃষকের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছে। তাই তাঁর হাতকে শক্তিশালী করতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের এক সঙ্গে কাজ করতে হবে। এর আগে মন্ত্রী আলীকদমে পৌছে ৪৫ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকায় ২৪টি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন।

চব্বিশটি প্রকল্পের মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ১০ কোটি ১৭ লক্ষ, পার্বত্য জেলা পরিষদের ১ কোটি ৯৫ লক্ষ, এলজিইডির ৩৩ কোটি এবং মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১৪ গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন পার্বত্যমন্ত্রী।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্প গুলো হলো- বনিক মহাজনপাড়া কেন্দ্রীয় মন্দির নির্মাণ, চৈক্ষ্যং বিলে সেচ ড্রেন নির্মাণ, কৃষক সমবায় সমিতির সেচ ড্রেন নির্মাণ, নয়াপাড়া ছিদ্দিকিয়া দাখিল মাদ্রাসার শ্রেণী কক্ষ নির্মাণ, রেপারপাড়ী জামে সজিদের বারান্দা সম্প্রসারণ, আলীকদম আবাসিক বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস, আবাসিক বিদ্যালয়ের চেকনিক্যাল স্কুল ভবন, কর্মকার পাড়া সর্বাজনীন মন্দির ভবন, মংপাইখই হেডম্যানপাড়া বৌদ্ধ বিহার ছাত্রী নিবাস, নয়াপাড়া বায়তুল মাহমুদ মসজিদ, আমতলী ত্রিচরণ বৌদ্ধ বিহার, নয়াপাড়া বৌদ্ধ বিহার, কুরুকপাড়া জুনিয়র হাই স্কুল ছাত্রাবাস, মুরুং কল্যান ছাত্রাবাস এর ডাইনিং হল, মাতামুহুরী অনাথ আশ্রমের বাউন্ডারী ওয়ালসহ ছাত্রী হোস্টেল, বাঘেরঝিরি পাড়ায় চেরাংঘর ও মংপাইখই হেডম্যানপাড়া থেকে লেদুং পর্যন্ত সেচ ড্রেন নির্মাণ।

পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- ম্রো শাক্যমনি শিশু সদন ভবন পুন:নির্মাণ, মংচাপাড়া বরিশাল পাড়া হতে তৈন কলারঝিরি পর্যন্ত রাস্তা এইচবিবি করণ, আলীকদম বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগান নির্মাণ, আবাসিক স্কুলের পূর্ব এলাকায় কৃষি কাজ, মৎস্য চাষ পাকা ড্রেন, এতিমখানার ছাত্রাবাসের উর্দ্ধমুখী সম্প্রসারণ ও মসজিদের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করণ, রেপারপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে যাওয়ার রাস্তা ও ওজুখানার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তকরণ।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল কুদ্দুছ ফরাজী, আলীকদম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সায়েদ ইকবাল, লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, জেলা পরিষদ সদস্য মোজাম্মেল হক বাহাদুর, তিং তিং ম্যা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক আবদুল আজিজ, নির্বাহী প্রকৌশলী ইয়াছির আরাফাত, জেলা আওয়ামীলগ সহসভাপতি আব্দুর রহিম চৌধুরী, রেড় ক্রিসেন্ট সোসাইটির সেক্রেটারী অমল কান্তি দাশ, পার্বত্যমন্ত্রীর একান্ত সচিব সাদেক হোসেন চৌধুরী প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen + 14 =

আরও পড়ুন