ইদগড়-কাগজীখোলা সড়কের বেহাল দশা

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের বিচ্ছিন্ন এলাকা ১ ও ২ নং ওয়ার্ডের একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম ইদগড়-কাগজীখোলা সড়কটি। শুকনো মৌসুমে কোন রকম যানবাহন চলাচল করলেও বর্ষা মৌসুমে বর্তমানে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে।

বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ থেকে মাঝখানে রামু উপজেলার ইদগড় ইউনিয়নের অবস্থান। এরপর রয়েছে বাইশারী ইউনিয়নের ৩ টি ওয়ার্ডের অবস্থান। (১ , ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড) । যুগ যুগ ধরে সড়কটির বেহাল দশার কারণে দুর্গম এলাকার মানুষ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, সাংস্কৃতিক, খেলাধুলাসহ নানা ধরনের নাগরিক সুবিধা থেকে পিছিয়ে রয়েছে। ৩ টি ওয়ার্ডে কমপক্ষে ১০ হাজার লোকের বসবাস রয়েছে বলে জানালেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ, শাহাবুদ্দিন।

সরেজমিনে এলাকা ঘুরে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা যায় , ইদগড় বাজার হয়ে কাগজী খোলা সড়কটি প্রায় সাড়ে সাত কিলোমিটার। বর্তমানে সড়কটি ইট বিছানো অবস্থায় থাকলেও ভারী বর্ষণের ফলে সড়কের বিভিন্ন স্থান খানখন্দ, কাদামাটি, এমনকি পাহাড়ি ছড়ায় পরিণত হয়েছে।

সড়কের নিরিবিলি রাবারবাগান, ছৈক্যার উঠনি, আশ্রয়ন প্রকল্প তোয়াম্মার পাড়া, ক্যাংগারবিল ক্যথোইপাড়া পাড়াসহ বিভিন্ন স্থানের অবস্থা দেখলে মনে হবে এটাকি সড়ক!! না ভিন্ন কিছু।

সড়কটির বেহাল দশার কারনে স্কুল, কলেজ, মাদরাসা মক্তবে পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীরা পায়ে হেটে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে প্রতিষ্ঠানৈ আসা খুবই মশকিল হয়ে পড়েছে। ১ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, সড়কটির বেহাল দশার কারণে আমারা দশহাজার মানুষ এখন জিম্মি। পায়ে হেটে যাওয়া ছাড়া আর কোন উপায় নাই। বাজারের নিত্য প্রয়োনীয় মালামাল আনা নেওয়া, উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরন কাঁধে বহন করা ছাড়া আর বিকল্প কোন ব্যবস্থা নেই। তাছাড়া রোগীও কাঁদে বহন ছাড়া অন্য উপায় নেই।

তিনি আরো বলেন কাগজীখোলায় একটি পুলিশ ফাঁড়ি, একটি প্রাখমিক বিদ্যালয়, একটি মাদ্রাসা রয়েছে এবং ছোট একটি বাজার রয়েছে।  শুধুমাত্র সড়কের বেহাল অবস্থার কারণে সবকিছু অপরিপূর্ণ।

উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল করিম জানান ইট বিছানো ইদগড়-কাগজীখোলা সড়কটি ইতিমধ্যে কার্পেটিং দ্বারা উন্নয়নের জন্য মেপে নেওয়া হয়েছে এবং কাগজপত্র তৈরি করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছে। অচিরেই শুরু হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানি বলেন, পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর এম পি মহোদয়ের আন্তরিকতায় ইদগড় কাগজীখোলা সড়ক, আলিক্ষং সড়ক, অবশ্যই পাকা হবে এবং অন্যান্য সমস্যাগুলোরও সমাধান হবে।

তিনি বিষয়টি উপজেলা সমন্বয় সভায় প্রস্তাবটি তুলে ধরেছেন বলেও জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইদগড়-কাগজীখোলা সড়ক, বাইশারী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × one =

আরও পড়ুন