ঈদগাঁওতে যুবক অপহরণ চেষ্টাকালে ভূয়া সেনা সদস্য আটক

fec-image

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে এক যুবককে অপহরণ চেষ্টাকালে জনতা এক ভূয়া সেনা সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

রবিবার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ঈদগাঁও ইউনিয়নের ভোমরিয়া ঘোনা ফরেস্ট অফিস এলাকা থেকে এ প্রতারককে আটক করা হয়৷

ধৃত ভূয়া সেনা সদস্য নিজেকে কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ঘোনা পাড়া কবির মোরা এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে বলে দাবি করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উক্ত প্রতারক আবদুল্লাহ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইউনিফর্ম পরিহিত অবস্থায় ভোমরিয়া ঘোনায় এসে নিজেকে সেনাবাহিনীর সার্জেট পরিচয় দিয়ে উক্ত এলাকার ছৈয়দ আলমের ছেলে তৈয়বুল হাসান নামের এক যুবককে ফোনে ডেকে এনে সিএনজিতে তোলার চেষ্টা করে।

বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসলে তারা তাকে চ্যালেঞ্জ করে।

বাসিন্দারা মুহূর্তেই এলাকার সন্তান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্য বেলাল উদ্দীনের মাধ্যমে তার পরিচয় শনাক্ত করে। এসময় ধৃত যুবক ভূয়া একটি সেনাবাহিনীর পরিচয় পত্র প্রদর্শন করে। সেটি বেলাল উদ্দিন ভূয়া বলে শনাক্ত করলে লোকজন প্রতারক আবদুল্লাহকে আটক করে পুলিশকে সংবাদ দেয়৷

ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ(পরিদর্শক) মো. আসাদুজ্জামান সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে ধৃত যুবকটি ভূয়া সেনা সদস্য নিশ্চিত হয়ে ঘটনাস্থলে তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মোহাম্মদ ইমরানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ পাঠান।

পুলিশ জনতার রোষানল থেকে এ ভূয়া সেনা সদস্যকে উদ্ধার করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়৷

এসময় পুলিশ তার পরনে থাকা সেনাবাহিনীর এক সেট ইউনিফর্মও উদ্ধার করে।

এঘটনায় অপহরণ চেষ্টার শিকার যুবক বাদি হয়ে এ প্রতারকের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চালছে।

তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. আসাদুজ্জামান জানান, ধৃত ভূয়া সেনা সদস্য আবদুল্লাহ সেনা ইউনিফর্মগুলো জঙ্গলে কুড়িয়ে পেয়েছে বলে জানিয়েছে।

ইতোপূর্বেও এ প্রতারককে ভোমরিয়া ঘোনা এলাকায় একাধিকবার ঘুরাঘুরি করতে দেখেছিল বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঈদগাঁও, কক্সবাজার, সেনাবাহিনী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − fifteen =

আরও পড়ুন