কর্তৃপক্ষের অবহেলায় জড়িতরা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে!

ঈদগাঁহতে গ্যাস ক্রসফিলিং বিস্ফোরণে দগ্ধ দুই শ্রমিকের মৃত্যু

fec-image

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁহতে গ্যাস ক্রসফিলিং বিস্ফোরণের ৫ দিন পর অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন আগুনে পুড়ে যাওয়া দুই শ্রমিক। ঘটনার পাঁচ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রহস্যময় কারণে জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা না নেয়ায় এ অবৈধ গুদাম গড়ে তুলার পেছনে সরাসরি কর্তৃপক্ষের অসাধু কর্মকর্তাদের হাত থাকতে পারে বলে বদ্ধমূল ধারণা করছে ক্ষুদ্ধ জনগণ।

এদিকে ভয়াবহ বিস্ফোরণের দিন দগ্ধ হওয়া শ্রমিক নজরুল ইসলাম(১৮), পিতা-নুরুল আজিম, সাং-দক্ষিণ লরাবাগ জালালাবাদ, ঈদগাহ বুধবার (৯ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে এবং অপর শ্রমিক জামাল উদ্দীন(২৫), পিতাঃমুহাম্মদ ইদ্রিস, সাং-পাহাড়তলী, রশিদনগর, রামু একই রাত সোয়া ১১টার দিকে মরণ যন্ত্রণায় কাতরাতে কাতরাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন বলে মোবাইলে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম শহরে অবস্থানকারী ঈদগাঁহ’র কৃতি সন্তান মহি উদ্দিন।

উল্লেখ্য, এ ভয়াবহ ঘটনার পর এ অবৈধ ক্রসফিলিং গুদামের মালিক আবু ছৈয়দ ও তার ভাই আবু তৈয়বের বিরুদ্ধে এখনো কোন আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। উল্টো উক্ত গুদাম মালিক আবু তৈয়ব গংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে বলায় ঈদগাঁহ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্নভাবে বিষোদগার করে যাচ্ছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন চেয়ারম্যান। এদিকে এ মৃত্যুর সংবাদে ঈদগাঁহ’র সাধারণ লোকজন এ অবৈধ ক্রস ফিলিং গোলাম মালিক ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে চরমভাবে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঈদগাহ, বিস্ফোরণ, মৃত্যু
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 1 =

আরও পড়ুন