ঈদগাঁহে এসএসসি পরীক্ষার্থীর  অভিভাবকরা ফলাফল নিয়ে উদ্বিগ্ন

fec-image

সোমবার থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনের বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষায় কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁহতে পুরনো প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়েছে ২২ জন পরীক্ষার্থী। এ সংবাদে অভিভাবকরা সন্তানদের ফলাফল নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

কক্সবাজার সদর কেন্দ্র নং-৪ ঈদগাঁহ জাহানারা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে।

ঈদগাঁহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিক খুরশিদুল জন্নাত এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন ।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সেলিম উদ্দীন বিষয়টি তাৎক্ষণিক বোর্ড কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন এবং এই বিষয়ে বোর্ড কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করবেন বলে আশস্থ করেছেন বলে জানান।

পরীক্ষার্থীদের উদ্ধৃতি দিয়ে খুরশিদুল জন্নাত জানান, কেন্দ্র নং-৪ ঈদগাঁহ জাহানারা ইসলাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ঈদগাঁহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৮জন ও ঈদগাঁহ আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের ৩ জনসহ মোট ২২ পরীক্ষার্থীকে ২০১৮ সালের পুরনো নৈর্বত্তিক প্রশ্ন পত্র সরবরাহ করা হয়।

কিন্তু তাদের দেয়া প্রশ্নপত্র পুরনো ছিল তা তারা বুঝতে না পেরে নৈর্বত্তিক প্রশ্নপত্রে উত্তরপত্র পূরণ করে ফেলে। পরে রচনামূলক প্রশ্নপত্রও একইভাবে ২০১৮ সালের পুরনোগুলো দেয়া হয়। তখনই বিষয়টি তারা আঁচ করতে পারেন। তবে ততক্ষণে পরীক্ষারসময় ঘণ্টাকাল পার হয়ে যায়।

একপর্যায়ে পরীক্ষার্থীরা বিষয়টি দায়িত্বরত শিক্ষককে জানালে তা নজরে আসে। পরে তাদেরকে রচনামূলক প্রশ্নপত্র পরিবর্তন করে দেয়া হয়। তবে তাদের নষ্ট হওয়া সময়ের কোনো বিহিত ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এর ফলে পূর্ণমান প্রশ্নোত্তর দিতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। এই নিয়ে তাদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সেলিম উদ্দীন বলেন, প্রশ্নপত্র বিলি করতে গিয়ে শুধুমাত্র নৈর্বত্তিক অংশটা পুরনো প্রশ্নপত্র দেয়া হয়েছে। শিক্ষক এবং সংশ্লিষ্ট কয়েকজন পরীক্ষার্থীর মধ্যে কথোপকথনের মাঝে ভুলে এই সমস্যা হয়েছে। তবে বিষয়টি সাথে সাথে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

বোর্ডের নির্দেশনা মোতাবেক ওই সব খাতাগুলো আলাদা করে পাঠানো হয়েছে। ওই খাতাগুলো আলাদাভাবে বিবেচনা করবেন বলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ আশ্বস্থ করেছেন। তাই ওইসব পরীক্ষার্থীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছুই নেই।

এই বিষয়ে জানতে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগ করা হলেও কল না ধরায় কেন্দ্র সচিবের বক্তব্য জানা যায় নি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঈদগাহ, এসএসসি, কক্সবাজার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + fifteen =

আরও পড়ুন