উঠতি বয়সী তরুণ ও শ্রমিকদের কাছে খুচরায় ইয়াবা ছড়াতো তারা

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের অন্তত ৯টি পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমার থেকে আসছে নিষিদ্ধ ইয়াবা। পুলিশ-বিজিরি অভিযানে কিছু চালান আটক হলেও প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে চালানের বড় একটি অংশ দেশের বিভিন্ন স্থানে চলে যাচ্ছে। আর স্থানীয়ভাবে এর বিস্তার করছে একটি সিন্ডিকেট। বিভিন্ন পেশার আড়ালে তারা স্থানীয় উঠতি বয়সী তরুণ ও শ্রমিকদের হাতে সহজেই তুলে দিচ্ছে ইয়াবা।

বুধবার (১৬ জুন) সকালে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে তেমন দুই মাদককারবারী গ্রেফতার হয়েছে। আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে এমন তথ্য স্বীকার করেছে দুই মাদককারবারী।

আটককৃতরা হলো- পূর্ব বিছামারা এলাকার হাকিম আলীর ছেলে আলমগীর হোসেন (২৪) ও উত্তর বিছামারা এলাকার মৃত আবদু রহমানের ছেলে মো. হাসেম উদ্দিন (৪৬)। এসময় অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া এসআই মোজাম্মেল হোসেন ও খাদেমুল মাদককারবারীদের ধরতে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয় মাদককারবারীদের চিহ্নিত এবং তাদের আটকের জন্য বেশ কিছুদিন ধরে কাজ করছে পুলিশের টিম। গোপন সংবাদের ভিতিত্তে বুধবার সকালে উপজেলা সদরের বিছামারা বড়ুয়াপাড়া এলাকায় অভিযানে গেলে দুই মাদককারবারী পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করে আটক করার পর তাদের দেহ তল্লাসী করে ২শ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। অভিযানকালে মাদককারবারীদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র দ্বারা আঘাতপ্রাপ্ত হন দুই পুলিশ সদস্য।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইয়াবা, তরুণ, শ্রমিক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 − 11 =

আরও পড়ুন