উন্নয়নের পূর্বশর্ত শান্তি-শৃঙ্খলা; গুম, চাঁদাবাজিতে সমাধান নেই: পার্বত্য মন্ত্রী

fec-image

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদূর ঊশৈসিং এমপি বলেন, উন্নয়নের পূর্ব শর্ত হলো শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা। গুম, চাঁদাবাজি করে কোন সমাধান হয় না। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক এর আয়োজনে রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

পার্বত্য মন্ত্রী বলেন, রাজা বাবু, হেডম্যান, কার্বারীদের মধ্যে কোন সমন্বয় নেই। সমন্বয় না করলে সমস্যার সমাধান হবে না।

হেডম্যানদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, আপনারা অফিসের কথা বলছেন। আপনারা চাইলে নিজ ঘরকে অফিস বানিয়ে জনসেবা দিতে পারেন। দু:খের বিষয় আপনারা জানেন না আপনাদের মৌজায় কি পরিমাণ জুম চাষ হয়। কয়টি স্কুল-কলেজ আছে। রাস্তা-ঘাট সংস্কারে আপনারা চাইলে উদ্যোগ নিতে পারেন। ডিসির সাথে কথা বলে উন্নত জুম চাষের ব্যবস্থা করতে পারেন।

মন্ত্রী চাকমা সার্কেল চিফের বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, হেডম্যান-কার্বারীদের বেতন-ভাতা বাড়ানোর জন্য বলা হচ্ছে। অথচ আপনারা ডিসির সাথে বসে এসকল সমস্যা সমাধান করতে পারেন।

হেডম্যানদের স্থায়ী কার্যালয়ের ব্যাপারে মন্ত্রী জানান, আমি ব্যাপারটি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বলবো। আশাকরি প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে ব্যবস্থা করে নিবেন।

মন্ত্রী বলেন, সময়ের সাথে আইন বদলে যাচ্ছে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। পার্বত্যাঞ্চলের রীতি-নীতি মেনে আগে সকল সমস্যার সমাধান করা হতো। বর্তমানে জ্ঞানী মুরব্বীরা হারিয়ে যাচ্ছেন। তাই অতিসত্ত্বর এসব রীতি-নীতিগুলো লিখিত আকার করা অত্যন্ত জরুরি।

মন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনা বিশ্ব নেতা। ওনি যা কথা দেন তাই করেন। দেশের উন্নয়নে শেখ হাসনার কোন বিকল্প নেই। শেখ হাসিনা পার্বত্য জনপদের সন্তানদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষত করতে মেডিকেল কলেজ, প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন। এ অঞ্চলের উন্নয়নে পার্বত্য মন্ত্রণালয় সৃষ্টি করেছেন।

সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক এর সভাপতি কংজরী চৌধুরীর এর সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধক ছিলেন চাকমা সার্কেল চিফ ব্যারিস্টার দেবাশিষ রায়। অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুই প্রু চৌধুরী অপু, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার ডা. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, মং সার্কেলের রাজা, তিন পার্বত্য চট্টগ্রামের হেডম্যান এসোসিয়েশনের সভাপতিগণ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উন্নয়ন, গুম, চাঁদাবাজি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × two =

আরও পড়ুন