উপজেলার দাবি অধরা

কক্সবাজারে নতুন থানা ঈদগাঁহ আলোর পথে

fec-image

কক্সবাজার জেলায় ঈদগাঁহ নামের নতুন থানা চুড়ান্ত করেছে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ। এ সংবাদে জনগণ আনন্দিত হলেও যুগের দাবি স্বপ্নের ঈদগাঁহ উপজেলার দাবি পুরণ না হওয়ায় সচেতন জনগণকে চরম হতাশা প্রকাশ করতেও শোনা যায়।

জানা যায়, কক্সবাজার সদর উপজেলা ও সদর মডেল থানার আওতাধীন বৃহত্তর ঈদগাঁহ,র পাঁচ ইউনিয়ন যথাক্রমে ঈদগাঁও, ইসলামপুর, জালালাবাদ, ইসলামাবাদ ও পোকখালী ইউনিয়নকে পৃথক করে ঈদগাঁহ নামের নতুন থানা অনুমোদনে সম্মতি দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিগত বছরের শেষদিকে। পরবর্তীতে তা বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় কার্যাবলী সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো।

১৪ জুন রাতে সিটিভি কক্স নামের একটি অনলাইন টেলিভিশনে করোনা সংক্রান্ত লাইভ অনুষ্ঠানে কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও ঈদগাঁহ’র কৃতি সন্তান লে. কর্নেল(অবঃ) ফোরকান আহমদ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী কক্সবাজার সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলকে জানান,ঈদগাঁহ নামের নতুন থানা বাস্তবায়নে অফিসিয়ালি যাবতীয় কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট দপ্তর সম্পন্ন করেছে। চুড়ান্ত গেজেট আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশ হতে পারে।

গেজেট প্রকাশের পরপরই নতুন এ থানার কার্যক্রম শুরু করতে প্রয়োজনীয় জনবল কাঠামো নিয়োগে নির্দেশনা দেবেন পুলিশ সদর দপ্তর। এ সময় তিনি দ্রুত সময়ে থানার কার্যক্রম শুরু করতে সংসদ সদস্যের সহযোগিতা কামনা করেন।

উত্তরে সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন,নতুন এ থানার কার্যক্রম শুরু করতে অতীতের মতো সবধরণের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং অত্র থানা বাস্তবায়নে জড়িত সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

বিশেষ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সুযোগ্য সচিব, ঈদগাঁহ’র কৃতি সন্তান হেলাল উদ্দীন আহমদের আন্তরিক সহযোগিতায় ঈদগাঁহ নামের নতুন থানা দ্রুত সময়ে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন বিভিন্ন সময়।

এদিকে ঈদগাঁহ তদন্ত কেন্দ্র থানায় রুপান্তর হওয়ায় এলাকার আইনশৃঙ্খলার অভূতপূর্ব উন্নতি হবে। এজন্য জনগণ আনন্দিত।

উল্লেখ্য, বৃহত্তর ঈদগাঁও’র লাখো জনগোষ্ঠী যুগ যুগ ধরে ঈদগাঁহকে পৃথক উপজেলা ঘোষণার দাবি করে আসছে। এলাকার যেসব কৃতি সন্তান সরকারের উর্ধ্বতন স্থরে নিয়োজিত তাদের সহযোগিতায় সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে অফিসিয়ালিভাবে তাদের দাবি সম্বলিত বিভিন্ন কর্মসূচি যথাযথ কতৃপক্ষের নিকট পৌঁছিয়েছে।

এমনকি কক্সবাজার সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল জাতীয় সংসদে একাধিকবার ঈদগাঁহকে পৃথক উপজেলা ঘোষণার দাবিতে জোরালো বক্তব্য রেখেছেন।

বিভিন্ন মহলের প্রচেষ্টায় বিগত বছর ঈদগাঁহকে পৃথক উপজেলা গঠন সংক্রান্ত একটি পত্র স্থানীয় সরকার বিভাগ জারি করে।এতে ঈদগাঁহ’র লাখো জনগোষ্ঠি খুশিতে উদ্বেল হয়। কোন সময় জনগণ ঈদগাঁহ থানার দাবি না করলেও উপজেলা সংক্রান্ত পত্র জারির কিছুদিন পরে আকস্মিকভাবে ঈদগাঁহকে নতুন থানা হিসেবে অনুমোদন দেয়া হয়।এতে জনগণ আশাহত হয়।কারণ থানা শুধু এলাকার আইনশৃঙ্খলার উন্নতিতে কাজ করে।

অপরপক্ষে একটি উপজেলা হলে সর্বদিকে উন্নয়ন সাধিত হয়।তারপরও সরকারের দেয়া থানার কার্যক্রম বাস্তবায়নে সচেতন জনগণ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

অবশেষে কক্সবাজার সদর আসনের সাংসদ, কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের চেয়ারম্যানসহ সরকারের বিভিন্ন উচ্চপদে কর্মরত এলাকার কৃতি সন্তানদের আন্তরিক সহযোগিতায় ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার নুরুল আজিমের অক্লান্ত পরিশ্রমে ঈদগাঁহ নামের নতুন থানা আলোর মুখ দেখার পথে।

এলাকার সাধারণ জনগণ তাদের কাছে ঋণী এবং আগামীতে ঈদগাঁহবাসীর যুগের দাবি অধরা স্বপ্নের ঈদগাঁহ উপজেলা বাস্তবায়নে এ কৃতি সন্তানদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশা প্রকাশ করেন ঈদগাঁহ’র সচেতনজনগণ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঈদগাঁও, কক্সবাজার, থানা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 4 =

আরও পড়ুন