কক্সবাজারে স্কুল পরিচালনা কমিটির নির্বাচন নিয়ে নয়-ছয়ের অভিযোগ

fec-image

কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা খরুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন আগামী ২০ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনকে ঘিরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহিরুল হকের বিরুদ্ধে নয়-ছয়ের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগে প্রকাশ, গেল ২০২১ পর্যন্ত বিদ্যালয়ের ‘দাতা সদস্য’ তালিকায় হাফেজা খাতুন, শহিদুল ইসলাম শিমুলের নাম ছিল। এই নির্বাচন কেন্দ্রিক তালিকায় আরো তিন জনের নাম দেখা যাচ্ছে। যার মধ্যে যুবায়ের মুহাম্মদ এহসান ও আব্দুল মান্নান ভুট্টো প্রধান শিক্ষকের নিকটাত্মীয়। অপরজন রহিম উদ্দিন ছিদ্দিকী প্রতিবেশী।

জনশ্রুতি আছে, প্রতিবারই এ ধরনের ‘নির্বাচনী দাতাদের’ কৌশলে নিয়মিত কমিটিতে আনা হয়। তাই কমিটিকে প্রধান শিক্ষকের পকেট কমিটি মন্তব্য করে থাকেন এলাকাবাসী।

স্থানীয় শিক্ষানুরাগী, অভিভাবকদের সাথে কথা বলে দেখা গেছে, স্বনামধন্য বিদ্যালয়ের পুর্নাঙ্গ দক্ষ কমিটি গঠনে বরাবরের মতই সন্দেহযুক্ত।

এছাড়া প্রধান শিক্ষক ভোটার তালিকা নিয়ে নানা অনিয়ম করারও অভিযোগ তুলেছেন একাধিক অভিভাবক সদস্য প্রার্থী। তবে প্রধান শিক্ষক তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, শিক্ষা বোর্ডের নীতিমালা ও নির্দেশনা মেনে নির্বাচন হয়। ব্যক্তিগত পছন্দ মতে কমিটিতে পদ দেয়ার সুযোগ নাই।

এদিকে, দাতা সদস্য হাফেজা খাতুন সোমবার অনিয়মের কথা তুলে ধরে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তার।

স্কুল কমিটিতে মোট ১০ পদের নির্বাচন হচ্ছে। এতে অভিভাবক সদস্য ৫, শিক্ষক প্রতিনিধি ৩, দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা একজন করে নির্বাচিত হবেন।

সোমবার (১ আগস্ট) মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিনে ১০ পদের বিপরীতে ১৪ প্রার্থী ফরম জমা দিয়েছেন। বিকেল ৪ টায় ফরম বিক্রির শেষ সময় হলে ৪ টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত সাংবাদিকদের তথ্য দিতে অনীহা প্রকাশ করেন প্রধান শিক্ষক। পরে তার ইচ্ছে মতো ৫ টার পর সাংবাদিকদের তথ্য সরবরাহ করেন তিনি।

সর্বোচ্চ অভিভাবক সদস্য পদপ্রার্থী ৭ জন। তারা হলেন, রশিদ আহমদ, মোহাম্মদ আয়াছ, জালাল উদ্দিন, ফরিদ উদ্দিন মুহম্মদ, শফিকুল ইসলাম, ওবায়দুল হক বাবুল, রশিদ আহমদ।

দাতা সদস্য পদে হাফেজা খাতুন ও রহিম উদ্দিন ছিদ্দিকী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মহিলা সদস্যে মুসররত আক্তার, প্রতিষ্ঠাতা সদস্যে আমিনুল হক, শিক্ষক প্রতিনিধি পদে রফিকুল ইসলাম, আহমদুর রহমান ও শওদা পারভিন।

আগামী ৪ আগস্ট বিকাল ৩টা পর্যন্ত প্রার্থীতা বাছাই। প্রত্যাহার ৮ আগস্ট। শেষে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন। মোট ভোটার ৭৩৪ জন।

২০ আগস্ট সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হবে।

নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার রাশেদুল হাসান মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

নির্বাচনের আগে ৬ মাসের এডহক কমিটিতে ছিলেন, রহিম উদ্দিন ছিদ্দিকী সভাপতি, প্রধান শিক্ষক মাস্টার জহিরুল হক সাধারণ সম্পাদক (পদাধিকারবলে), শিক্ষক প্রতিনিধি সদস্য আবু ছৈয়দ ও অভিভাবক সদস্য আমিনুল হক।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার, স্কুল পরিচালনা কমিটির নির্বাচন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + 6 =

আরও পড়ুন