কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা নিতে আদালতের নির্দেশ

fec-image

পরিবহন সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আইনজীবীর ওপর হামলার ঘটনায় কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম প্রকাশ কালা জহির (৫২)সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা নিতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

ভিকটিম এডভোকেট তাহের আহমদ সিকদারের (৫২) আবেদনের প্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সদর) আদালতের বিচারক জেরিন সুলতানা।

পরে আদালতের (সি.আর মামলা নং-৫৬৫/২১,স্মারক নং-১১০৫/২১) নির্দেশে মামলাটি রেকর্ড করার জন্য সদর থানায় পাঠানো হয়।

মামলায় অন্যান্য অভিযুক্তরা হলেন- সদরের ঝিলংজার ৪নং ওয়ার্ড উত্তর মুহুরীপাড়ার মৃত কলিম উল্লাহর ছেলে রহিম উল্লাহ (৪০), ৩নং ওয়ার্ড জানারঘোনার মৃত সুলতান আহমদের ছেলে মোহাম্মদুল হক (৪৫), দক্ষিণ মুহুরীপাড়ার মৃত ছাবের আহমদের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৪০) ও জাবেদ প্রকাশ বার্মাইয়া জাবেদ (২৫)। প্রধান আসামি জহিরুল ইসলাম প্রকাশ কালা জহির ঝিলংজা ৪নং ওয়ার্ড দক্ষিণ মুহুরীপাড়ার মৃত ফিরোজ আহমদ মুন্সির ছেলে। পালক পিতা জামাল আহমদ।

মামলার বাদি এডভোকেট তাহের আহমদ সিকদার (৫২) ঝিংলজা ইউপির ৪নং ওয়ার্ডের মুহুরীপাড়ার মৃত আফতাব উদ্দিন আহমদ সিকদারের ছেলে।

মামলার বাদি এজাহারে উল্লেখ করেছেন, গত ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টার দিকে তার মালিকানাধীন চট্টমেট্রো-১১-১০৯০ মিনিবাসটি ঝিলংজা ইউনিয়নের লিংকরোড স্টেশন জামে মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে যাত্রী ‍উঠাচ্ছিল। এ সময় অতর্কিতভাবে ধারালো অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম, লিংকরোড় সিএনজি সমবায় সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রহিম উল্লাহ, লাইনম্যান মোহাম্মদুল হক ও বার্মাইয়া জাবেদ খুনের উদ্দেশ্যে হামলা করে। এতে তিনি (তাহের আহমদ সিকদার) মারাত্মক জখমপ্রাপ্ত হন। ঘটনা দেখে স্থানীয় ছৈয়দ আলম এগিয়ে যান। এ সময় তাকেও ব্যাপক মারধর এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা তদের উদ্ধার করে হাসপাতাল পাঠায়।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি শেখ মুনীর-উল-গীয়াসের নিকট বুধবার রাত ১২টার দিকে মুঠোফোনে জানতে চাইলে বলেন, আদালতের আদেশের একটি কপি হাতে পেয়েছি। এখনো রেকর্ড হয়নি। কালকে (বৃহস্পতিবার) দেখব।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আদালতের, কক্সবাজার, মামলা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + 13 =

আরও পড়ুন