কচ্ছপিয়ায় ঘুষের টাকার ভাগাভাগি নিয়ে সংঘর্ষে আহত-২

fec-image

রামুর কচ্ছপিয়া বনবিট এলাকার বনবিভাগের পাহাড়ি টিলাতে বহুতল পাকা ভবন নির্মাণে নেয়া ঘুষের টাকার বিষয়ে তর্কাতর্কিতে দুইদল ছোট বন রক্ষকের মাঝে সংঘর্ষে দুইজন আহত হয়েছে।

আহতরা হলেন, হেডম্যান মঞ্জুরুল আলম(৪১), তার বাড়ি কচ্ছপিয়ার মৌলভীর কাটা মিয়াজির পাড়ায়। অপরজন হলো আবু তাহের ( ১৭)। সে বড়জাংছড়ি গ্রামের  ভিলিজার শফিক আহমদ প্রকাশ বদিয়্যার ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানান, গত ২৮ জুলাই (রোববার) রাত ১২টার পর (গভীর রাতে) চোরাইকাঠ আটক করতে জড়ো হয় বন বিভাগের কিছুলোক। সাথে হেডম্যান মঞ্জুর আলম ও ভিলেজার বদিয়্যাও। সে সময় তারা সকলেই সংবাদ অনুসারে কিছু চোরাইকাঠ আটক করে নাইক্ষ্যংছড়ির দিকে পাচারকালে। অভিযানে বনবিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তা ও উপস্থিত ছিলেন্। কিন্তু এরই ফাঁকে কচ্ছপিয়া বনবিটের বনপ্রহরী নূর মোহাম্মদ, হেডম্যান মঞ্জুর আলম এবং ভিলেজার (বনজায়গীরদার) বদিয়্যার সাথে তর্কাতর্কি শুরু হয় বনবিভাগের একখণ্ড জমিতে পাকা ভবন নির্মাণ কাজ থেকে নেওয়া টাকার বিষয়ে।

মঞ্জুর আলম এক পর্যায়ে ভিলেজার বদিয়্যাকে নিয়ে বার বার কটুক্তি করলে তার ছেলে আবু তাহের জোর প্রতিবাদ করে। এতে মঞ্জুর ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাতে থাকা লম্বা সাইজের টর্সলাইট দিয়ে আবু তাহেরের মাথায় জোরে আঘাত করে। এতে জখম হয় আবু তাহের। এ পরিস্থিতি দেখে ভিলেজার বদিয়্যার পরিবার উত্তেজিত হয়ে দ্বিতীয়দফা মারামারিতে মনজুর আলম আহত হন। ঘটনার পরপর এ দু’বনরক্ষককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে একজনকে রামু হাসপাতালে আর অপরজনকে নাইক্ষ্যংছড়ি হাসপাতালে।

এ বিষয়ে ভিলেজার বদিয়্যা জানান, মঞ্জু আলম বনবিভাগের নাম ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি করে আসছে। পাহাড়ি টিলা বিক্রি, বনবিভাগের জমি বিক্রি, বনের গাছ-বাঁশ সহ বনজ সম্পদ পাচারকালে চাঁদাবাজি তার নিত্যদিনের ঘটনা। ঘটনার দিন বদু পাড়ায় বনবিভাগের একখণ্ড জমিতে বহুতল ভবন নির্মাণ করতে গেলে বন বিভাগ এতে বাধা দেয়। সুযোগ পেয়ে মঞ্জুর আলম অনেক টাকা খতিয়ে নেয় ঘর নির্মাণকারী প্রবাসীর স্ত্রী মরিয়ম বেগম থেকে। এ নিয়ে তার সাথে তর্কাতর্কি হলে মঞ্জুর আলম রেগে যায়।

অপর দিকে মঞ্জুর আলম জানান, বদিয়্যা একজন কুখ্যাত সন্ত্রাসী। সে বনবিট কর্মকর্তাদের মধ্যে কয়েকজনকে ম্যানেজ করে চাদাঁবাজি সহ নানা অপরাধ করে আসছিলো।

অপর দিকে কচ্ছপিয়া বনবিট কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি অনাকাঙ্খিত। রোববার রাতে কাঠ ধরার সময় তিনি ছিলেন, বড়জাংছড়ি ব্রিজের উপর আর মঞ্জুর ও বদিয়্যা ছিলো সামান্য দূরে। এরই মধ্যে মারামারির মত ঘটনা দূঃখজনক।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আহত, সংঘর্ষে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + eighteen =

আরও পড়ুন