করোনা পরিস্থিতিতে চকরিয়া যুব পরিষদের ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ

fec-image

দিন যতই পার হচ্ছে ততই করোনার প্রকোপ বাড়ছে। নিম্ন আয়ের মানুষগুলো পাশাপাশি মধ্যবিত্তরাও পবিত্র মাহে রমজান মাসে পড়েছে আরো চরম ভাবে আর্থিক সংকটে। গরীব-অসহায়দের সরকার, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সমাজসেবক, বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও বিত্তবানরা সহায়তার হাত বাড়ালেও ত্রাণ সহায়তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে মধ্যবিত্তরা। তারা পারছেনা সইতে, পারছে না লজ্জায় কাউকে নিজেদের কথা শেয়ার করতে। চার দেয়ালের ভিতর চলছে হাঁড়িতে ঈদুর খেলার হিড়িক।

সরকার লকডাউন শতভাগ সফল করার চেষ্টা চলমান রাখলেও জীবন বাঁচানোর তাগিদে পরিবারের চেহারার দিকে তাকিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকে চুপিসারে নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার চেষ্টা করছে। এমন পরিস্থিতিতে আছিয়া কাশেম ট্রাস্টের সহযোগিতায় দেশের চলমান করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে ও মাহে রমজানে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে উপজেলার ও পৌরসভার সংগঠন সংশ্লিষ্টদের পাশে ঈদ উপহার সামগ্রী নিয়ে পাশে দাঁড়ালো চকরিয়া যুব পরিষদ।

বুধবার (২০মে) দুপুরে চকরিয়া পৌর শহরের চিরিংগা কাঁচাবাজারস্থ বাংলাবাজার সুপার শপের সামনে থেকে চকরিয়া যুব পরিষদের উপদেষ্টা ও সদস্যদের মাঝে সংগঠনের পক্ষথেকে প্রথম ধাপের ৭০ জনকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে যুব পরিষদের এক সদস্য বলেন, আমাদের দুঃসময়ের কথা কাউকে শেয়ার করতে পারিনি কখনো। কিন্তু সংগঠনের সভাপতির কাছে দুর্দিনের কথা শেয়ার করলে তাঁর এমন উদ্যোগে সত্যিই আমরা অনেক আনন্দিত। ঈদকে সামনে রেখে চকরিয়া যুব পরিষদের পক্ষথেকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণের জন্য আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই সভাপতি-সম্পাদককে।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো আতাউল গণি পারভেজ বলেন, বিশেষভাবে দুঃসময়ে থাকা যুবদের প্রতিটি মুহূর্তের খবর সংগঠন থেকে রাখা হচ্ছে। ধারাবহিকভাবে সংকটে থাকা সকল যুবদের কাছে পৌঁছে যাবে এ ঈদ উপহার সামগ্রী।

ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ প্রসঙ্গে চকরিয়া যুব পরিষদ সভাপতি তানজিনুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আল্লাহকে সন্তুষ্টির জন্য পবিত্র মাহে রমজান মাসে যুব পরিষদের পক্ষথেকে আমাদের এ উদ্যোগ। নিজেদের বিবেকের তাড়নায় ও এলাকার সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে জাতীয় এ মহামারীতে ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সংগঠনের সদস্যদের পাশে এসে দাঁড়ানো এটা যথেষ্ট নয়, শুধুমাত্র ক্ষুদ্র প্রয়াস। বর্তমান সময়ে মধ্যবিত্তরা আজ কঠিন দুঃসময় পার করছে। একটি দেশের মূল চালিকাশক্তি হলো যুব সমাজ। চকরিয়া যুব পরিষদ সবসময় যুবদের পাশে আছে। সামান্য উপহারে যদিওবা কিছুইনা, তবুও আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি করোনা পরবর্তী অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলায় যুবদের কৃষিখাতে উৎসাহিত করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এ সংকটময় মুহূর্তে যুবদের পাশে থাকার জন্য আছিয়া কাশেম ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ন ইছহাক এর প্রতি কৃতজ্ঞ ও আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি করোনা পরবর্তী দেশের অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবেলায় যুব সমাজের পাশে থাকার জন্য কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সাংসদ, উপজেলা প্রশাসন, পৌর প্রশাসন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, সমাজসেবা অধিদপ্তর, আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্প, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, বিভিন্ন এনজিও সংস্থা ও বিভিন্ন দাতা সংস্থার প্রতি বিনীত অনুরোধ জানান সংগঠনের সভাপতি তানজিনুল ইসলাম ।

উল্লেখ্য বিগত১০ এপ্রিল করোনার প্রভাবে জীবিকা হারানো কর্মহীন দরিদ্রদের মাঝে চকরিয়া যুব পরিষদ (বদরখালী ইউনিয়ন শাখা) ৫শত অসহায়, দিনমজুর ও নিম্ন আয়ের পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরন করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া যুব পরিষদের স্থায়ী কমিটি সদস্য এডভোকেট মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ, অর্থ সম্পাদক মো বারেক, চকরিয়া পৌর যুব পরিষদ আহ্বায়ক সাকিবুর রহমান কলিম প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া, যুব পরিষদের
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 3 =

আরও পড়ুন