করোনা প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন গৃহবন্দি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে সরকার

fec-image

করোনা প্রাদুর্ভাবে সাধারণ মানুষ অনেক কষ্টে আছে উল্লেখ করে মাটিরাঙা জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. নওরোজ নিকোশিয়ার পিএসসি-জি বলেছেন, শুরু থেকেই কর্মহীন গৃহবন্দি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে সরকার।

রোববার (২৮ জুন) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে করোনা প্রাদুর্ভাবে গৃহবন্দি শ্রমজীবী, দুঃস্থ ও হত-দরিদ্র মানুষের মাঝে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ হতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে খাদ্য সহায়তা বিতরণের অংশ হিসেবে দ্বাদশ ধাপে মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে পাঁচ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ কালে লে. কর্নেল মো. নওরোজ নিকোশিয়ার পিএসসি-জি এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙার মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে বলেই এখানে সংক্রমণ কম উল্লেখ করে তিনি বলেন, সাধারণ মানুষের সচেতনতার কারনেই দেশের অন্যান্য এলাকা থেকে আমরা নিরাপদ আছি। এসময় তিনি সকলকে আরো সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।

করোনায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাটিরাঙা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা কর্মহীন মানুষের ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌছে দেয়ার জন্য তাকেও ধন্যবাদ জানান তিনি।

এসময় মাটিরাঙা জোনের উপপ-অধিনায়ক এ এস এম মঞ্জুরুল কবীর পিএসসি, মাটিরাঙা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরার সভাপতিত্বে খাদ্য সহায়তা বিতরণী অনুষ্ঠানে মাটিরাঙা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম হুমায়ুন মোরশেদ খান, মাটিরাঙা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক কোকোনাথ ত্রিপুরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য দিপার মোহন ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য চন্দ্র কিরণ ত্রিপুরা ও মলেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ছাড়াও স্থানীয় হেডম্যান কার্বারী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সবসময়ই মানুষের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে মাটিরাঙা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা বলেন, মাটিরাঙায় হু হু করে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এ থেকে আমাদেরকে বাঁচতে সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

পরে মাটিরাঙা ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করেন মাটিরাঙা জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. নওরোজ নিকোশিয়ার পিএসসি-জি‘সহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + 15 =

আরও পড়ুন