কর্মস্থলে যোগ দিলেন নতুন আরআরআরসি মাহবুব তালুকদার

fec-image

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) হিসাবে গত সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে নিয়োগ পাওয়া মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার (জ্যেষ্ঠ যুগ্মসচিব) রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে কক্সবাজারে নতুন কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন।

মোটেল সড়কস্থ (বিজয় স্বরণী) তে অবস্থিত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ে অতিরিক্ত আরআরআরসি মিজানুর রহমান থেকে নতুন আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার দায়িত্ব বুঝে নেন।

এর আগে গত শনিবার (৭ আগষ্ট) বিকালে তিনি বিমানযোগে কক্সবাজার পৌঁছান। আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার বৃহস্পতিবার (৫ আগষ্ট) দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে অফিসিয়ালি যোগদান করেন। একইভাবে বিদায়ী আরআরআরসি মোহাম্মদ আবুল কালাম এনডিসি (অতিরিক্ত সচিব) একইদিন বিকালে মন্ত্রনালয়ে গিয়ে আরআরআরসি’র দায়িত্ব থেকে রিলিজ হন বলে তিনি সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন।

বিদায়ী আরআরআরসি মোহাম্মদ আবুল কালাম এনডিসি (অতিরিক্ত সচিব) কক্সবাজার কর্মস্থল ত্যাগের আগে জ্যেষ্ঠ এডিশনাল আরআরআরসি মিজানুর রহমানের কাছে তাঁর দায়িত্বভার অর্পণ করেন।

নতুন আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার এর আগে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। নিজ কর্মস্থলে দায়িত্ব নিয়ে মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার নিজ অফিসে সবার সাথে কুশল ও মতবিনিময় করেন। পরে রোহিঙ্গা প্রশাসনের উর্ধ্বতন সকল কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করে সার্বিক কর্মপদ্ধতি নির্ধারণ করেন তিনি।

বৈঠকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তালিকা তৈরি করে কর্ম সম্পাদনের সিদ্ধান্ত নেন। এ সময় তিনি সবাইকে রাষ্ট্রের স্বার্থ ও সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে পেশাদারিত্বের সাথে নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।

প্রসঙ্গত, বিগত সালের নভেম্বর ও চলতি সালের ২২ আগস্ট পূর্ব নির্ধারিত মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসনে কথিত ব্যর্থতা, গত ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা শরণার্থী আগমনের ২ বছর পূর্তি উপলক্ষে ক্যাম্পের ভিতরে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মহাসমাবেশ করার বিষয়ে শৈথিল্য প্রদর্শনের অভিযোগে বিদায়ী আরআরআরসি মোহাম্মদ আবুল কালাম এনডিসি (অতিরিক্ত সচিব) ও তাঁর প্রশাসন তমুল বিতর্কের মধ্যে পড়েন। এ নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হন খোদ সরকারের নীতিনির্ধারণী মহল। এ অবস্থায় বিদায়ী আরআরআরসি মোহাম্মদ আবুল কালাম এনডিসি (অতিরিক্ত সচিব) সহ ৫ জন রোহিঙ্গা প্রশাসনের কর্মকর্তা’কে বদলি করা হয় এবং নতুন আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদারসহ ৩ জন কর্মকর্তাকে গত ২ সেপ্টেম্বর নতুন করে নিয়োগ দেয়া হয়।

এদিকে, রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসনে বহুমুখী জটিলতা, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সন্ত্রাসী ও অপরাধ কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়া, দীর্ঘদিন রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে কর্মরত থাকা রোহিঙ্গা প্রশাসন ও পুলিশের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের মৌলিক অধিকার আদায়ের জন্য গঠিত বিভিন্ন রোহিঙ্গা সংগঠনের সন্ত্রাসী অপতৎপরতা বৃদ্ধি, স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জন্য রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য মোট অর্থ বরাদ্দের প্রতিশ্রুত ২৫% ভাগ অর্থ ব্যয় করা, রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে কর্মরত এনজিও এবং আইএনজিও তে স্থানীয়দের চাকুরির ব্যবস্থা করা, অনুমোদনহীন এনজিও গুলোকে শরণার্থী ক্যাম্প এলাকায় কাজ করতে না দেয়াসহ আরো বহুবিদ কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে নতুন নিয়োগ পাওয়া আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার ও তাঁর প্রশাসনকে এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নতুন আইআইআইসিকে সমাধানের পথ খুঁজতে হবে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সাথে এনজিও এবং আইএনজিও গুলোর দ্বন্দ্ব, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাথে সাংঘর্ষিক অবস্থানসহ দীর্ঘদিন জিইয়ে থাকা অনেক জটিল সমস্যার। রোহিঙ্গা শরণার্থী আগমনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া স্থানীয় জনগোষ্ঠী, পরিবেশ, অবকাঠামো উন্নয়নে নতুন প্রশাসনের ভূমিকা কি হবে তাও অনেক ভাবার বিষয় বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে নতুন নিয়োগ পাওয়া আরআরআরসি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার বলেন, রাষ্ট্রীয় ভাবে দায়িত্ব যখন দেওয়া হয়েছে, কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং হলেও রাষ্ট্রের স্বার্থে সে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে পেশাদারিত্ব ও দক্ষতার সাথে সেগুলো সমাধান করতে হবে আমাদের সম্মিলিতভাবে। সরকার আমাকে যে এজেন্ডা দিয়ে কক্সবাজারে আরআরআরসি অফিসের প্রধান করে পাঠিয়েছেন সেসব এজেন্ডা শতভাগ বাস্তবায়ন ও কাজ করতে গিয়ে সৃষ্ট নতুন সংকট ও সমস্যা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক রাষ্ট্রের ইন্টারেস্টকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করে যাবো ইনশাল্লাহ।

তিনি বলেন, দীর্ঘ ২৫ বছরের চাকুরী জীবনের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে সবার সহযোগিতায় মনোবল, প্রেরণা ও প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তিনি কখনো বিচলিত ও হতাশ হননি।

এ জন্য তিনি কক্সবাজার জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সেনাবাহিনী, জনপ্রতিনিধি, বিজিবি, এনজিও, আইএনজিও, সুশীলসমাজ, স্থানীয় জনগোষ্ঠী, গণমাধ্যমসহ সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করে বলেন, সবাই দেশপ্রেম নিয়ে রাষ্ট্রের স্বার্থের কথা চিন্তা করলে সহজেই এ সব সমস্যার সমাধান করা যাবে ইনশাল্লাহ।

তিনি রোহিঙ্গা শরনার্থীর সাথে বিভিন্নভাবে জড়িত সকলকেই দেশের স্বার্থকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে গঠন মূলকভাবে এ সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন।

নতুন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার (৬২৮৪) বাংলাদেশ সরকারের একজন জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সচিব। ১৯৯৪ সালে অনুষ্ঠিত ১৫ তম বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়ে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের সদস্য হন। ১৯৯৫ সালের ১৫ নভেম্বর তিনি প্রথম সরকারি চাকুরীতে যোগদান করেন। চাকুরী জীবনে মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার কুষ্টিয়া সদর উপজেলা ও যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলার ইউএনও, ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ঝিনাইদহ ও নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। যুগ্মসচিব হিসাবে পদোন্নতি পাওয়ার পর তিনি দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক (প্রশাসন) হিসাবে সর্বশেষ দায়িত্ব পালন করেছেন।

সম্প্রতি মোঃ মাহবুব আলম তালুকদারকে বরিশাল বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার হিসাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হতে বদলি করা হয়। সে বদলি আদেশ বাতিল করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় মোঃ মাহবুব আলম তালুকদারকে সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার হিসাবে নিয়োগ প্রদান করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × three =

আরও পড়ুন