কাপ্তাইয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর গুজব, একজন সাংবাদিক পরিবারের অসহায়ত্ব

fec-image

গত ১২জুন (শুক্রবার) করোনা উপসর্গ ছাড়া স্বাভাবিকভাবে মারা যান কাপ্তাই বিএফআইডিসি‘র সাবেক সিবিত্র সভাপতি মো. শাহ আলম(৬৫)। তিনি কাপ্তাই প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. কবির হোসেনের বড় ভাই।

কিন্ত কাপ্তাই এলাকার কে বা কাহারা গুজব রটিয়ে দেই যে তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে। সেই গুজবটি মুহুর্তে ছড়িয়ে পড়ে কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন এলাকায়।

যথারিতি কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগ মৃত্যুর ২দিন পূর্বে তার নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য চট্রগ্রাম পাঠান।

বুধবার(১৭ জুন) উক্ত রির্পোটের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানান।

এই বিষয়ে কাপ্তাই প্রেসক্লাবের সভাপতি সাপ্তাহিক পাহাড়ে সময় ও অনলাইন পার্বত্য নিউজ পত্রিকার কাপ্তাই উপজেলা প্রতিনিধি মো. কবির হোসেন জানান, তার বড় ভাইয়ের মৃত্যু বার্ধক্যজনিত ও কিডনি সমস্যার কারনে স্বাভাবিক মৃত্যু হলেও এলাকার অনেকে এই মৃত্যুকে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে প্রচারণা , অপপ্রচার ও গুজব ছড়ায়।

ফলে তিনি এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা হোম কোয়ারেন্টিনে চলে যায়। রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত তার পরিবার অনেকটা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। প্রতি মুহুর্তে অসহায়ত্বের মতো ঘরে তার নিজ সন্তান ও পরিবার পরিজন নিয়ে থেকেছি।সমাজের ভয়ে বের হতে পারি নেই। এদিনগুলো কিভাবে কেটেছে কাউকে বুজাতে পারবোনা আমার মত যেন এধরনের আর কারো না হয়।

তবে তিনি ধন্যবাদ জানান, কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশ্রাফ আহমেদ রাসেল এর প্রতি। তিনি কাপ্তাই প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ঝুলন দত্তর মাধ্যমে পরিবারের নিকট খাবার পাঠিয়েছে।

সেই সাথে তিনি অনুরোধ জানান, না জেনে না বুজে রির্পোট না আসা ছাড়া যেন কোন মৃত্যুকে করোনা উপসর্গ মৃত্যু বলা না হয় এবং গুজব না ছড়ায়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনা উপসর্গ, করোনাভাইরাস, কাপ্তাই
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 + seven =

আরও পড়ুন