কাপ্তাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড় ছেড়ে বসবাসকারীদের আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে প্রশাসনের মাইকিং

fec-image

গত কয়েক দিনের টানা প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধ্বসের ঝুঁকি থাকায় কাপ্তাইয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসরত মানুষজনকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়া এবং আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে অবস্থান নেওয়ার জন্য কাপ্তাই উপজেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে মাইকিং করে অবহিত করণের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

দুদিন যাবৎ উপজেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে তথ্য অফিস কর্তৃক দিনব্যাপী সতর্কীকরণ মাইকিং কার্যক্রম চালিয়ে জনগনকে নিরাপদ স্থানে আসার অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল জানান, কাপ্তাই নতুনবাজার ঢাকাইয়া কলোনি, চন্দ্রঘোনার মিতিঙ্গাছড়ি, ওয়াগ্গার সাফছড়ি, মুরালীপাড়া, কুকিমারা, রাইখালির কারিঘর পাড়া, ডংনালা সহ যে সব জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণভাবে পাহাড়ের পাদদেশে যারা বসবাস করছেন তাদেরকে আশ্রয় কেন্দ্রে যাবার জন্য মাইকিং করে এবং স্হানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে অনুরোধ করা হচ্ছে।

তিনি জানান, ইতিমধ্যে সব কয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ২৪ ঘন্টা খোলা রাখার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে, যাতে জনগন এইসব আশ্রয় কেন্দ্রে এসে আশ্রয় নিতে পারে। সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, কাপ্তাই এর অনেক জায়গায় পাহাড়ের পাদদেশে মৃত্যুর ঝূকি নিয়ে বসবাস করছে শ’ শ’ পরিবার। ফলে মাত্রাতিরিক্ত প্রবল বর্ষণ হলে ভূমিধ্বসে যেকোন সময় লন্ডভন্ড হয়ে যেতে পারে কয়েক’শ ঘরবাড়ি, পাশাপাশি প্রাণহানি ঘটার সম্ভাবনাও রয়েছে। উল্ল্যেখ যে, ২০১৭ সালের ১২ ও ১৩ জুন অবিরাম বৃষ্টির ফলে কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধ্বসে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কাপ্তাই, কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 1 =

আরও পড়ুন