কাপ্তাই মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজে নেই অগ্রগতি

fec-image

রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলায় ১৩ কোটি টাকার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতি কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ বন্ধ। কাজ চলছে মন্থর গতিতে। ১৮ মাসের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও কাজের, কাজ কিছুই হয়নি । সিংহ ভাগ কাজ এখনও অধরা । কবে নাগাদ শেষ হবে তার কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।

কাপ্তাই উপজেলা সদর বড়ইছড়ি পুরাতন কেন্দ্রীয় মসজিদ ভেঙ্গে কাপ্তাই উপজেলায়ও প্রায় ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে মেগা প্রকল্প মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য নভেম্বর ২০১৯ সালে এ প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয়। কিন্ত মডেল মসজিদের কাজ চলছে মন্থর গতিতে। সিংহ ভাগ কাজ এখনও রয়ে গেছে। এদিকে এ নির্মাণ কাজ নিয়ে বিভিন্ন মহলের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কবে নাগাদ এর কাজ শেষ হবে তারও কোন উত্তর পাওয়া যায়নি। মডেল মসজিদের নির্মাণের দরপত্র আহ্বান করে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় আওতাধীন অধিদপ্তর গণপূর্ত বিভাগ রাঙ্গামাটি।

এবং ঠিকাদারী কাজ পায় শেফাত এন্টারপ্রাইজ। শেফাত এন্টারপ্রাইজ ঠিকাদার ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল ইসলাম পার্বত্যনিউজকে জানান, আমরা প্রায় ১৯ নভেম্বর ২০১৯ সাল থেকে এ মডেল মসজিদ নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করে করেছি। প্রায় তিন কোটি টাকার কাজ করেছি। তার মধ্যে আমরা পেয়েছি মাত্র ৫০ লক্ষ টাকা।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে গণপূর্ত বিভাগ ফান্ডে টাকা নেই বলে উল্লেখ করেন। তিনি আরো জানান, মসজিদের পাশের পাহাড় নিয়ে আনসারের মধ্যে জটিলতা রয়েছে। মসজিদের ৪৭টি ফুটিং বেইজের মধ্যে ইতিমধ্যে ৪১টি করা হয়েছে আরও বাকি রয়েছে ৬টি। চলতি শুষ্ক মৌসুমে এ বাকি ৬টি ফুটিং বেইজ করা না গেলে বর্ষা মৌসুমে করা কঠিন হবে বলে উল্লেখ করেন। মসজিদের পাশে আনসার ব্যাটালিয়নের সাথে পাহাড় বা সীমানা নিয়ে জটিলতার ফলে ২৫ জানুয়ারি ২০২১ থেকে কাজ বন্ধ রয়েছে বলেও জানান।

এদিকে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মসজিদ কমিটির সভাপতি মুনতাসির জাহান বলেন, কবে নাগাদ কাজ বন্ধ রয়েছে বা কি সমস্যা আমাকে কেউ জানায়নি বা তিনি এ ব্যাপারে কোন কিছুই জানেনা বলে মন্তব্য করেন। তবে তিনি আরও বলেন, সরকারের এ মেগা প্রকল্পের কাজ বন্ধ হতে পারেনা।

এদিকে রাঙ্গামাটি গর্ণপূর্ত বিভাগের ইঞ্জিনিয়ার সমিধ তালুকাদারের (এসডিও) সাথে ফোনে কাজের অগ্রগতি জানতে চাইলে তিনি নির্মাণকাজ বন্ধের কথা অস্বীকার করে বলেন, ঢালাই কাজ হয়েছে তাই নির্মাণ শ্রমিকরা বাড়িতে ছুটিতে গেছে । আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আবার ফিরে এসে কাজ করবে বলে জানান। তবে তিনি জায়গা বা ফান্ড সমস্যা নিয়ে কোন কিছুই বলেননি ।

এদিকে রাঙ্গামাটি জেলা ইসলামিক ফাউনেন্ডশন উপ-পরিচালক মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, সরকারের এত বড় মেগা প্রজেক্ট মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের মাঝে মধ্যে খোঁজ খবর নেয় এবং কোন, কোন উপজেলায় এ নির্মাণ কাজ ধীরে হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন। নির্মাণ কাজের গতি আরো  বাড়ানোর জন্য আহ্বান জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + 12 =

আরও পড়ুন